আনোয়ারা-কর্ণফুলীতে আওয়ামী লীগের মোটর শোভাযাত্রা

17

আনোয়ারা প্রতিনিধি

আগামিকাল শনিবার কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মিত দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার প্রথম টানেল ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল’ উদ্বোধন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমনকে স্বাগত জানিয়ে মোটর শোভাযাত্রা করেছে আনোয়ারা ও কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামী লীগ। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল ৩ টায় কর্ণফুলীর মইজ্যারটেক এলাকা থেকে এই মোটর শোভাযাত্রাটি বের হয়ে আনোয়ারা উপজেলা সদর, তৈলার দ্বীপ, সরকারহাট, কালাবিবির দীঘির মোড়, চাতরী চৌমুহনী বাজার, জনসভাস্থল কেইপিজেড গেইট, কাফকো গেইট প্রদক্ষিণ করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন ভূমিমন্ত্রীর একান্ত সহকারী সচিব রিদোয়ানুল করিম চৌধুরী সায়েম, কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান ফারুক চৌধুরী, আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক এম এ মান্নান চৌধুরী, সহ-সভাপতি ও চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ সদস্য এসএম আলমগীর চৌধুরী, আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জসীম উদ্দিন চৌধুরী, কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোলায়মান তালুকদার, দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সভাপতি দিদারুল ইসলাম চৌধুরী, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হায়দার আলী রণি, বৈরাগ ইউপি চেয়ারম্যান নোয়াব আলী, জুঁইদন্ডী ইউপি চেয়ারম্যান মো. ইদ্রিচ, বারশত ইউপি চেয়ারম্যান এমএ কাইয়ুম শাহ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ও চাতরী ইউপি চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন চৌধুরী সোহেলসহ আনোয়ারা ও কর্ণফুলী উপজেলার সকল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
এসময় কর্ণফুলী উপজেলা চেয়ারম্যান ফারুক চৌধুরী বলেন, আগামি ২৮ অক্টোবর মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে আনোয়ারা- কর্ণফুলীর জনসাধারণের মাঝে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে এই জনসভা জনসমুদ্রে পরিণত হবে। আশা করি দশ লক্ষ লোকের সমাগম ঘটবে। ইতোমধ্যে আমাদের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন। এখন শুধু মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আসার অপেক্ষা।
আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক এমএ মান্নান চৌধুরী বলেন, আগামি ২৮ অক্টোবর স্বপ্নের বঙ্গবন্ধু টানেল উদ্বোধনের মাধ্যমে ইতিহাসের একটি অধ্যায় রচিত হবে। এই টানেল বাংলাদেশকে বিশ্বে অনন্য মর্যাদা দিবে। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের যে বন্যা বাংলাদেশে বইছে, তা আজকে দেশবাসীর কাছে দিনের আলোর মত পরিষ্কার। এজন্য চট্টগ্রামবাসী অধীর আগ্রহে বসে আছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কখন আসছেন। আমরা চট্টগ্রামবাসী তাঁকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত।