আদিবাসী সংস্কৃতি রক্ষায় চাই ভাষাভিত্তিক সাহিত্যের বিকাশ

13

 

দীর্ঘ সময় ধরে চুক্তি বাস্তবায়ন না হওয়া অবশ্যই হতাশা জনক, অধিকতর আন্দোলন ছাড়া অধিকার প্রতিষ্ঠা হবে না। পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি যথাযথ বাস্তবায়নের দাবিতে চট্টগ্রামে আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন আবুল মোমেন। গত ২ ডিসেম্বর নগরীর জেএমসেন হল প্রাঙ্গণে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির ২৪তম বর্ষপূর্তি উদ্যাপন কমিটির আহব্বায়ক তাপস হোড়’র সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন একুশে পদক প্রাপ্ত লেখক, কবি ও সাংবাদিক আবুল মোমেন।
প্রধান অতিথি বলেন, ২৪ বছর পূর্বে আমরা আশা করেছিলাম এই চুক্তির মাধ্যমে পাহাড়ী জনগোষ্ঠীর মাঝে শান্তি ফিরে আসবে। কিন্তু, চুক্তি বাস্তবায়ন না হওয়ায় সেটি এখনও অধরা রয়ে গেছে। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধ তথা বাঙালি জাতীয়তাবাদী আন্দোলনে বুদ্ধিজীবী মহলের মাঝে আদিবাসীদের নিয়ে অন্তর্ভুক্তিমূলক কোন পদক্ষেপ ছিল না। পার্বত্য চট্টগ্রামে সামাজিক রাজনৈতিক পরিবেশ বজায় রাখা কিংবা ১৯০০ সালে বিধি অনুযায়ী অধিকার দেওয়ার কথা ছিল সেটিও দেওয়া হচ্ছেনা কিংবা তা কেন দেওয়া হচ্ছে না সেটিও জানা হলোনা। আবুল মোমেন বলেন, বাংলাদেশের আদিবাসীদের সংস্কৃতি রক্ষা করতে হলে ভাষা ভিত্তিক সাহিত্যের বিকাশ ঘটাতে হবে, না হলে বাংলা ভাষী সংস্কৃতির সাথে হারিয়ে যেতে হবে। লেখা পড়া জ্ঞান চর্চা মাতৃভাষায় করতে হবে, মানসম্মত সাহিত্য মাতৃভাষার মাধ্যমে চর্চা করতে হবে। চবি শিক্ষক হোসাইন কবির বলেন, পাহাড়ে যে সংগ্রাম হয়েছে, সেটি মানুষ হিসেবে আমারও সংগ্রাম বলে মনে করি। কাপ্তাই বাঁধের ফলে তারা যে ভূমি হারিয়েছে সেটির ক্ষতিপূরণ কিন্তু তারা পায়নি। আজকে পাহাড়ে আদিবাসী জনগোষ্ঠীকে বছর বছর ধরে অধিকারের জন্য লড়াই করতে হচ্ছে। সেখানে রক্তক্ষরণ বন্ধ করার জন্য চুক্তি হয়েছে সেজন্য রাষ্ট্রকে ধন্যবাদ জানাই কিন্তু চুক্তির তো বাস্তবায়ন হয়নি। ফলে পাহাড়ে এখনও প্রতিটি মানুষের জীবনে হতাশা ও অনিশ্চয়তা বিরাজ করছে। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, কবি ও সাংবাদিক হাফিজ রশিদ খান, ঐক্য ন্যাপের পাহাড়ী ভট্টাচার্য, চট্টগ্রাম চেম্বার এন্ড কর্মাস এর সাবেক পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, বাংলাদেশের কমিউনিষ্ট পার্টি চট্টগ্রাম এর সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য অধ্যক্ষ মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, সাংবাদিক সুমী খান, আইনজীবী ও নারী নেত্রী রেহেনা বেগম রানু, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. আনন্দ বিকাশ চাকমা, বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের চট্টগ্রাম মহানগরের সাধারণ সম্পাদক নিতাই প্রসাদ ঘোষ, পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সদস্য হ্লামিউ মারমা প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি