আদালতে আসামির স্বীকারোক্তি

18

রাউজানে এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে নগদ ৩ লাখ টাকাসহ ৪ লক্ষ টাকা মূল্যমানের জিনিষ লুট করার ঘটনায় মো. রাসেল (২৪) নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে রাউজান থানা পুলিশ। গ্রেপ্তারের পর গতকাল রবিবার চট্টগ্রাম জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে তিনি জবানবন্দী দেন। স্বীকারোক্তির পর তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলে প্রেরণ করা হয়। রাসেল উপজেলার চিকদাইর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের লুদি গোস্তামির বাড়ির মো. রফিকের ছেলে বলে জানা গেছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মৃদুল বড়ুয়া জানান, এই ঘটনার পর ব্যবসায়ী সামশুল আলম বাদি হয়ে স্থানীয় মো. মনজু (৩০), মো. রিজুয়ান (৩৫), রাসেল (২৪) কে আসামি করে মামলা করেন। পরে অভিযান চালিয়ে আমরা রাসেলকে গ্রেপ্তার করি। আদালতে তোলা হলে রাসেল লুটের ঘটনায় নিজের যুক্ত থাকার কথা স্বীকার করে।
উল্লেখ্য, গত ২৭ নভেম্বর রাতে স্থানীয় এক ব্যবসায়ীর নগদ তিন লক্ষ টাকা ও ১ লক্ষ টাকা মূল্যমানের মোবাইলসহ বিভিন্ন জিনিষ লুট করে দুর্বৃত্তরা। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার চিকদাইর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের আমির হোসেন দফাদারের বাড়ির আবু তাহেরের ছেলে জানে আলমকে গ্রেপ্তার করে। তবে তার নামের স্থলে ভুলবশত জানে আলম মিনহাজ নামে একজনের নাম লেখায় প্রশ্নের উদ্রেক হয়। প্রকৃত পক্ষে জানে আলম মিনহাজ একই ইউনিয়নের যুবলীগ নেতা ও স্থানীয় সমাজসেবক হিসেবে পরিচিত।