আগামী নির্বাচনে আবারও নৌকাকে জয়ী করতে হবে

5

ফটিকছড়ি প্রতিনিধি

১৪ দলীয় জোটের অন্যতম শীর্ষ নেতা, বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশন (বিটিএফ) চেয়ারম্যান, ফটিকছড়ি এমপি আলহাজ সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী বলেছেন, দেশে উন্নয়নের দ্বারা অব্যাহত রাখতে স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আগামী জাতীয় নির্বাচনে নৌকাকে বিজয়ী করতে হবে। শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী বানাতে হবে।
তিনি গতকাল সকালে ফটিকছড়িতে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস উপলক্ষে উন্নয়ন মেলা উদ্বোধন শেষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি একথা বলেন। বিটিএফ চেয়ারম্যান বলেন, আগামী নির্বাচনে ১৪ দল জোটগত ভাবে নির্বাচন করবে। এ নিয়ে সম্প্র্যি বৈঠকে সিন্ধান্ত হয়েছে। তিনি বলেন, দেশ ক্লান্তি লগ্নে অবস্থান করছে। শকুনের একটি দল তাকিয়ে আছে। জামাত-শিবির, বিএনপিসহ আরেকটি শকুনের দল, হায়নার দল আ’লীগের মধ্যে আছে। তারা জামায়াতে সাথে হাত মেলাতে চেয়েছিল, নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী তা করতে দেয়নি । ভারতের সহযোগিতা নিয়েছি এবং ভারত সরকার স্পষ্ট ভাষায় সরকারকে বলেছে জামায়াত নিয়ে কোন খেলা খেলতে পারবে না। আমার মামলায় জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল হয়েছে, এর সুফল ভোগ করছে আ’লীগ। স্বাধীনতা বিরোধীদের সাথে কোন আপোষ হতে পারে না। ফটিকছড়ির উন্নয়নের ব্যাপারে তিনি বলেন, বিগত সময়ে সারা দেশের ন্যায় ফটিকছড়িতেও প্রতি সেক্টরে ব্যাপক উন্নয়ন করেছি, নাজিরহাট পুরাতন হালদা সেতু নির্মাণে ৫ কোটির বেশি টাকা বরাদ্দ হয়েছে; আগামী মাসের শুরুতে টেন্ডার হবে ইনশাআল্লাহ।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাব্বির রাহমান সানি’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান হোসাইন মো. আবু তৈয়ব, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেবুন্নাহার মুক্তা, ভাইস-চেয়ারম্যান মুহাম্মদ ছালামত উল্লাহ চৌধুরী, সহকারী কমিশনার (ভূমি) এটিএম কামরুল ইসলাম, ফটিকছড়ি পৌর মেয়র মো. ইসমাইল হোসেন। মাস্টার নাসির উদ্দিন চৌধুরীর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আরেফিন আজিম, উপজেলা প্রকৌশলী তন্ময় নাথ, ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাহনেওয়াজ, চেয়ারম্যান হারুন অর রশীদ ইমন, চেয়ারম্যান দিদারুল আলম, চেয়ারম্যান শাহাদাত হোসেন সাজু, বীর মুক্তিযোদ্ধা খায়রুল বশর চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা সরোয়ার কামাল, কাউন্সিলর সেলিনা আকতার, মো. সোলায়মান, সেলিমা বেগম শিউলি, শহীদুল ইসলাম আকাশ, তৌহিদুল আলম, কামাল উদ্দিন, বণিক অন্তরা, ইফতিখার উদ্দিন মুরাদ প্রমুখ।