আওয়ামী লীগ জনগণের ভোটেই ক্ষমতায় আসে

9

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জনগণের ক্ষমতায় বিশ্বাস করে- এমন মন্তব্য করে সগঠনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন বলেছেন, আওয়ামী লীগ মনে করে জনগণই সকল ক্ষমতার উৎস, বন্দুকের নল নয়। আওয়ামী লীগ জনগণের ভোটেই বারবার ক্ষমতায় এসেছে, বন্দুকের নল বা মধ্যরাতের ভোটে আসেনি। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনেও আমরা মনে করি, ভোটাররা ভোট দিলে জিতব, না হলে জিতব না। আমরা একটি অবাধ, সুষ্ঠূ নির্বাচন চাই। কিন্তু বিএনপি এ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য নানা চক্রান্ত করছে। আমরা মনে করি, ২৭ জানুয়ারি চট্টগ্রামের জনগণ তাদের সেই চক্রান্ত ভন্ডূল করে দেবে।
গতকাল সোমবার দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরীর পক্ষে নির্বাচনের সর্বশেষ পরিস্থিতি জানাতে সাংবাদিকদের সঙ্গে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য বিএনপির চক্রান্ত জনগণ ভন্ডূল করে দেবে। বীর চট্টলার মানুষ কোন কাপুরুষকে নয়, একজন বীরকে ভোট দেবে। সেই বীরের নাম রেজাউল করিম চৌধুরী। চট্টগ্রামের দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগের এ সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, বিএনপি ষড়যন্ত্রের পার্টি। তারা ঘুম থেকে উঠেই ষড়যন্ত্র দেখে। তাদের চোখ আলো দেখে না, জনগণ দেখে না। দেশের অন্যান্য জায়গায় যেসব নির্বাচন হয়েছে, সেখানে ভোটার উপস্থিতি ভালো ছিল, নির্বাচন সুষ্ঠূ হয়েছে। বিএনপিও বলছে নির্বাচন ভালো হয়েছে। চট্টগ্রামেও নির্বাচনের খুব সুন্দর পরিবেশ আছে, জনগণ ভোট দেওয়ার জন্য উন্মুখ হয়ে আছে।
বিএনপির প্রার্থী শাহাদাত হোসেনের নিরাপত্তায় পুলিশ মোতায়েনের বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,বিএনপির প্রার্থী জনবিচ্ছিন্ন, তাই পুলিশ দিয়ে নিরাপত্তা দিতে হচ্ছে। আমাদের প্রার্থীর পাশে জনগণ আছে। এজন্য আমাদের প্রার্থীর কোন নিরাপত্তার দরকার নেই। আমাদের প্রার্থীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন ভোটাররা। ভোটাররাই নিরাপত্তার প্রাচীর গড়ে তুলবেন।
আওয়ামী লীগের আরেক সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন বলেন, চট্টগ্রামে আওয়ামী লীগ অনেক শক্তিশালী। চট্টগ্রামের আওয়ামী লীগ নেতারা প্রোটেকশন নিয়ে রাজনীতি করেন না। আমাদের প্রার্থী একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধ করেছেন। উনার বিশ্বাস আছে, চট্টগ্রামের জনগণ উনাকে ভালোবাসেন, আওয়ামী লীগকে ভালোবাসেন।
কামাল হোসেন বলেন, বিএনপি জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন, সাংগঠনিকভাবে একটি মেরুদন্ডহীন দল। নির্বাচনকে বিতর্কিত করার জন্য বিএনপি ষড়যন্ত্র করছে। জামায়াত-শিবিরের সশস্ত্র সন্ত্রাসী, বিএনপি ক্যাডারদের চট্টগ্রাম শহরে এনে তারা নির্বাচনকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছে। এ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা করছে। বিএনপির অতীত ইতিহাস চট্টগ্রামবাসী জানে। বিএনপির আমলে চট্টগ্রাম ছিল ছিনতাই-চাঁদাবাজি, লুটপাটের শহর। আজ জননেত্রী শেখ হাসিনার আমলে চট্টগ্রামের মানুষ শান্তিতে আছে। চট্টগ্রামের সবচেয়ে বেশি উন্নয়ন হচ্ছে শেখ হাসিনার আমলেই। সুতরাং ২৭ জানুয়ারি চট্টগ্রামের মানুষ শেখ হাসিনার প্রার্থী, নৌকা মার্কার রেজাউল করিম চৌধুরীকেই ভোট দেবে, এটা বিএনপিও জানে।
মতবিনিময় সভায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহজাদা মহিউদ্দিন ও সদস্য আবু সুফিয়ান, ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী রোটন, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি কলিম সরোয়ার, সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ উপস্থিত ছিলেন।