‘অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়তে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে’

9


হাটহাজারী :
চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) এর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, বর্তমান সরকার প্রতিটি ধর্মের স্বাধীনতা বিশ্বাসী, কারণ একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে দেশের স্বাধীনতার সূর্য ছিনিয়ে আনার জন্য জাতি ধর্ম-নির্বিশেষে সবাই অংশগ্রহণ করেছিলেন। সেখানে কোনো ধর্মীয় ভেদাভেদ ছিল না। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহŸানে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার জন্য মানুষ সাড়া দিয়েছিলেন। তবে, একটি মহল বর্তমান সরকারের অসা¤প্রদায়িক চেতনা নষ্ট করার জন্য প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। এ অপশক্তির বিরুদ্ধে সবাই ঐক্যবদ্ধ ও সজাগ থাকতে হবে। গত ১১ অক্টোবর শত বছরের ঐতিহ্যবাহী হাটহাজারী উপজেলার চৌধুরী হাট এলাকায় শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে বস্ত্র বিতরণ ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিটি মেয়র এসব কথা বলেন। উক্ত এলাকায় ফতেয়াবাদ পল্লী সংগঠন সমিতির উদ্যোগে আয়োজিত পূজামন্ডপ প্রাঙ্গণে ওই বস্ত্র বিতরণ ও আলোচনা সভার সভাপতিত্ব করেন সংগঠনটির সভাপতি কল্যাণ পাল। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম রাশেদুল আলম, চসিক ১নং দক্ষিণ পাহাড়তলী ওয়ার্ডের কাউন্সিলর গাজী শফিউল আজম, হাটহাজারী প্রেস ক্লাবের সভাপতি কেশব কুমার বড়ুয়া ও চিকনদন্ডী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান বাচ্চু। উক্ত সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন কালের কণ্ঠ পত্রিকার চট্টগ্রামের ডেপুটি ব্যুরো চীফ নূপুর কান্তি দেব। নটরাজ চৌধুরীর সঞ্চালনায় এ সময় উপস্থিত ছিলেন এসএম মোরশেদুল আলম চৌধুরী, কাজী আলমগীর আলী, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক বিকাশ নন্দী, সংগঠনের সাবেক সভাপতি উজ্জ্বল পাল, ফতেয়াবাদ পূজা উদযাপন পরিষদের সমন্বয়ক বিপ্লব ধর, মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সহ-সভাপতি বিপ্লব কুমার চৌধুরী প্রমুখ। এদিকে, আলোচনা সভা, বস্ত্র বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে একটি মনোমুগ্ধকর নাটিকা ‘মহিষাসুর বধ’ মঞ্চস্থ হয়।
খাগড়াছড়ি :
হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে পূজা উদযাপন পরিষদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় ও আর্থিক অনুদান বিতরণ করেছে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ। গত ১১ অক্টোবর র পরিষদ সম্মেলন কক্ষে শুভেচ্ছা বিনিময় ও আর্থিক অনুদান বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ভারত প্রত্যাগত শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি। তিনি বলেন, পাহাড়ে সকল সম্প্রদায়ের মানুষের মেলবন্ধন দীর্ঘ সময়ের। এখানে একে অপরের ভাই ভাই। তাই আমরা নিজ ভালো থাকবো,অন্যকে ভালো রাখাই এমনটাই হওয়া উচিত। এ সময় খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মংসুইপ্রæ চৌধুরীর সভাপতিত্বে জনসংযোগ কর্মকর্তা চিংলামং চৌধুরীর সঞ্চালনায় এতে উপস্থিত ছিলেন,পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা বশিরুল হক, খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র নির্মলেন্দু চৌধুরী, নির্বাহী কর্মকর্তা টিটন খীসা, সদস্য মংক্যচিং চৌধুরী, পরিষদের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ, পূজা উদ্যাপন পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক তরুণ কান্তি ভট্টাচার্যসহ জেলার পুজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দরা অংশ নেয়। পরে এতে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার ৫৫টি পূজা মন্ডপে প্রতিটিতে ১০ হাজার টাকা করে ৫ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা তুলে প্রধান অতিথিসহ আগতরা। প্রতিটি মন্ডপের পুরোহিত ও সহকারী পুরোহিত পরিদীয় বস্ত্রও তুলে দেওয়া হয় এতে।
রাউজান :
রাউজানে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা ও উৎসব মুখর পরিবেশে মহা ষষ্ঠীপূজার মধ্যদিয়ে শুরু হয়েছে সনাতন সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গোৎসব। উৎসবকে ঘিরে রাউজান উপজেলা প্রশাসন এবং পুলিশ প্রশাসনের সরেজমিন পরিদর্শনে ব্যাপক নজরদারী জোরদার রয়েছে। গত ১১ অক্টোবর বিকালে মন্ডপ পরিদর্শন করেন চট্টগ্রাম জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কবির আহমদ, রাউজান থানার অফিাসর ইনচার্জ আবদুল্লাহ্ আল হারুণ। উৎসবের প্রথম দিনের ষষ্ঠী পূজায় সনাতন ধর্মালম্বীদের মধ্যে ব্যাপক আমেজ লক্ষ্য করা গেছে। এ উপলক্ষে রাউজানের নোয়াপাড়ায় তরুণ সংঘের উদ্যোগে শারদ উৎসবে মালাকারপাড়া মহাজনবাড়ী মাতৃমন্দির প্রঙ্গনে মানুষের ভিড় জমে। পূজাকে ঘিরে এ মন্দির সেজেছে এক অপরূপ সাজে। যা দেখতে প্রথম দিন থেকেই লোকেলোকারণ্য এই মন্ডপ। মন্দিরে মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জলন, শুভ অধিবাসের মধ্যেদিয়ে মহা ষষ্ঠী পূজা পালিত হয়। এতে পৌরহিত্য করেন শ্রী পিনু চক্রবর্তী। উপস্থিত ছিলেন ধনা মালাকার, স্বপন মহাজন, সমীর মহাজন, অজিত মহাজন, জহুরলাল মহাজন, মনা মালাকার, রাজেশ মালাকার, অরুণ মহাজন। রণধীর মহাজনের সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উত্তম, সত্যজিৎ, দিপ্ত, তুষার, নিধন, বটন, রুবেল, আকাশ, সজল, সগর, অনুপ, মিটন, মন্জু, পুপন,বাবলু, প্রকাশ, ইন্দ্রজিৎ, সুজন, আশিষ, উজ্জল প্রমুখ। আনসার ও ভিডিপি রাউজান উপজেলা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রিয়া মহাজন, প্রশিক্ষক মোবরক হোসেন এবং টিম লিডার শাহেদুল ইসলাম জনান, পুলিশের পাশাপাশি রাউজানের ২৩৬টি পূজা মন্ডপে মোতায়ন করা হয়েছে ২৭৬ জনবল এবং ৭০ জন আনসার ভিডিপির সদস্যের রিজার্ভ ফোর্স।
ফতেয়াবাদ পূজা উদযাপন পরিষদ :
শারদীয় দুর্গা পূজা উপলক্ষে ফতেয়াবাদ পূজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে গত ১১ অক্টোবর শারদ সম্মাননা প্রদান, খাদ্য ও বস্ত্র বিতরণ, আলোচনা সভা সংগঠনের সভাপতি সঞ্জয় ঘোষের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক নয়ন পালিতের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন হাটহাজারী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এস এম রাশেদুল আলম। তিনি বলেন, বাংলাদেশ অসম্প্রদায়িক রাষ্ট্র। এদেশে সকল জাতি এবং বর্ণ ঐক্যবদ্ধভাবে দেশের কল্যাণে কাজ করে। সংবর্ধিত অতিথি ছিলেন গণস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় উপ পরিচালক ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়া।
প্রধান বক্তা ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান হাসান জামান বাচ্চু, উদ্বোধক ছিলেন বাগীশিক হাটহাজারীর প্রধান পৃষ্ঠপোষক লিটন মহাজন। আর্শিবাদক ছিলেন ফতেয়াবাদ পূজা উদযাপন পরিষদের প্রধান উপদেষ্ঠা অমরনাথ চৌধুরী, বিশেষ অতিথি ছিলেন মনিরুল ইসলাম পারভেজ, রনজিত চৌধুরী, রাজনীতিবিদ এস এম মোরশেদুল আলম চৌধুরী, মিলন চৌধুরী, অধ্যাপক শ্রীমান ঘোষ, তড়িৎ দাশ বাবু, ডা: বিজয় কৃষ্ণ সরকার, লিটন দাশ। বক্তব্য রাখেন মাসুদ জামান সোহেল, সৌমেন চৌধুরী, কানু দাশ, রঞ্জন কল্যাণ সেন, ইমন শীল রবিন, নয়ন ভট্টাচার্য জুয়েল, রনি পালিত, লিকন ঘোষ, জয় ধর, পুনম বনিক, সাগর পাল বাবু, টিটু ভট্টাচার্য, প্রসনজিত দাশ প্রমুখ।