অর্থনৈতিক সম্পর্ক শক্তিশালী করতে চীন-তালেবান চুক্তি

25

নিজেদের মধ্যে বাণিজ্যিক ও কূটনৈতিক সম্পর্ক শক্তিশালী করতে সমঝোতায় পৌঁছেছে আফগানি-স্তানের ক্ষমতাসীন অন্তর্বর্তী তালেবান সরকার ও চীন। কাতারের রাজধানী দোহায় মঙ্গলবার চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই’র সঙ্গে তালেবান সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকির এক বৈঠকে এ সমঝোতা হয়। বৈঠকে আমির খান মুত্তাকি ওয়াং ই’কে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, আফগানিস্তানের ভূমি চীন বিরোধী তৎপরতায় ব্যবহার করতে দেয়া হবে না।
দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠকে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যিক ও কূটনৈতিক সম্পর্কের ভবিষ্যত রূপরেখা ঠিক করা হয়েছে বলে জানান তালেবানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্দুল কাহার বালখি। তিনি আরও জানান, চীনে আফগান ব্যবসায়ীদের সহজে বাণিজ্য করার সুযোগ দেয়া, আফগানিস্তান থেকে চীনে ওষুধের কাঁচামাল রপ্তানি এবং চীনে আফগান ছাত্রদের উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সুযোগ দেয়ার বিষয়েও দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মধ্যে আলোচনা হয়েছে।
সাক্ষাতে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আফগানিস্তানের জনগণের জন্য মানবিক সাহায্য পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তিনি আফগানিস্তানের সার্বভৌমত্ব রক্ষা করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করে বলেছেন, দেশটিতে সকল পক্ষের অংশগ্রহণে একটি ব্যাপকভিত্তিক সরকার গঠন করা জরুরি। ওয়াং ই বলেন, তার দেশ আফগানিস্তানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে কিন্তু দেশটির অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবে না।