অব্যবস্থাপনা, দায়সারা আয়োজন : সাফল্য নিয়ে শংকা বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৭ ফুটবল জেলা পর্যায়ের খেলা উদ্বোধন কাল

12

ক্রীড়া প্রতিবেদক

পরিকল্পিত আয়োজনে এ টুর্নামেন্টকে ভিত্তি করে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে থাকা ফুটবল প্রতিভা খুঁজে বের করে দীর্ঘমেয়াদী প্রশিক্ষণের মাধ্যমে জাতীয় তারকা বের করার দারুন একটা সুযোগ ছিল। কিন্তু যেভাবে হচ্ছে তাতে এর সাফল্য নিয়ে শংকাটাই ঘুরপাক খাচ্ছে ক্রীড়াঙ্গনে। বিশেষ করে চট্টগ্রামে এ আয়োজনকে নিছক দায়সারা ছাড়া আর কিছুই বলা যাচ্ছে না। হঠাৎ করে ঘোষণা, দলগঠন ও অনুশীলনের জন্য পর্যাপ্ত সময় না দিয়ে তড়িঘড়ি উপজেলা পর্যায়ে খেলা শুরুর ফলে কি হয়েছে তা সবাই দেখেছে। বেশিরভাগ উপজেলাতেই আগ্রহী দল থাকলেও প্রস্তুতির সময় না পাওয়ায় অধিকাংশ টিমই টুর্নামেন্টে খেলতে অপারগতা জানায়। তারপরও খেলা শেষ করতে হবে বলে হয়েছে।
এবার জেলা পর্যায়ের খেলায় আরো খারাপ অবস্থা। আগে আমরা দেখেছি চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহযোগিতা নিয়ে ক্রীড়া সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নিয়ে বিভিন্ন সাব-কমিটি গঠন করা হয়। প্রত্যেক কমিটি নিজেদের দায়িত্ব সুচারুরূপে পালন করে কিনা তা তদারক করেন জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা। কি হবে বা হচ্ছে তা মিডিয়াকে জানানো হয় টুর্নামেন্ট শুরুর আগে। এবার কোন কিছুই দেখা যাচ্ছে না।
সিজেকেএস কর্মকর্তারাও তেমন গা নাড়ছেন বোঝার উপায় নাই। একজনতো বলেই ফেললেন, ডিসি অফিস খেলা চালাচ্ছে, আমরা তাদের সহযোগী। জেলা ক্রীড়া অফিসার আয়োজক কমিটির সদস্য সচিবের দায়িত্বে থাকলেও সবাইকে নিয়ে কাজ করার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। আরো হতাশার খবর হলো, চট্টগ্রামের ১৫ থানার কেউই এখনো বালিকা দল গঠন করতে পাওে নি অথচ কালই ম্যাচ শুরু।
এক কথায়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব অনূর্ধ্ব-১৭ জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট এর জেলা পর্যায়ের খেলা আয়োজন মারাত্মক অব্যবস্থাপনার কারণে ব্যর্থতায় পর্যবশিত হওয়ার ঝুঁকিতে পড়েছে।
এদিকে বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা (অনুর্ধ্ব-১৭ বালক/ বালিকা) জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট চট্টগ্রাম জেলা ও নগর পর্যায়ের খেলা আগামীকাল বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে শুরু হতে যাচ্ছে।
এ জেলার অধিভুক্ত ১৫টি উপজেলা এবং শহরের ৬টি থানাসহ ২১টি করে দল এতে নকআউট ভিত্তিতে খেলবে। উদ্বোধনী দিনে বালক বিভাগে সাতকানিয়া খেলবে চন্দনাইশ উপজেলার বিপক্ষে এবং বালিকা বিভাগে কোতোয়ালীর বিপক্ষে মাঠে নামবে ডবলমুরিং থানা। খেলা শুরু হবে বিকাল ৩টা ও বিকাল সাড়ে ৪টায়। তবে অংশগ্রহণকারী দলগুলোকে মাঠে রিপোর্ট করতে হবে খেলার ২ ঘন্টা পূর্বে। প্রত্যেক দলকে বয়স যাচাই-বাছাই কমিটির সামনে দাঁড়াতে হবে। যারা যোগ্যতা লাভ করবে, শুধুমাত্র তারাই খেলার সুযোগ পাবে।
টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করবেন জেলা প্রশাসন মোহাম্মদ মমিনুর রহমান। টুর্নামেন্টের সুষ্ঠু আয়োজন ও সাফল্যের সাথে শেষ করার লক্ষ্যে টুর্নামেন্ট পরিচালনা কমিটির এক প্রস্তুতিমূলক সভা সোমবার চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার মিডিয়া সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়। কমিটির আহবায়ক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এসএম জাকারিয়ার সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব ও জেলা ক্রীড়া কর্মকর্তা মনোরঞ্জন দে’র সঞ্চালনায় সভায় জেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম সম্পাদক মো. আমিনুল ইসলাম, মো. মশিউর রহমান চৌধুরী, কোষাধ্যক্ষ শাহাবুদ্দিন মো. জাহাঙ্গীর, জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সম্পাদক ওয়াহিদ দুলাল, সিজেকেএস ফুটবল কমিটির সম্পাদক মো. শাহাজাহান, সিজেকেএস নির্বাহী সদস্য মো. দিদারুল আলম, নাছির মিয়া, সিজেকেএস কাউন্সিলর কাজী জসিম উদ্দিন, রায়হান উদ্দিন রুবেল, আলী হাসান রাজু, এনামুল হক, সিডিএফএ সদস্য আবু সরোয়ার চৌধুরী, ক্রীড়া শিক্ষক আবদুল মাবুদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।