অন্তর হোক নির্মল

4

 

একমুঠো সোনালি নরোম রোদ্দুর! একফালি রূপোলি চাঁদের স্নিগ্ধ পরশ! জোৎস্নাময় অবারিত নির্মল আকাশ! সবই আমাদের প্রত্যাশিত। খুব খেয়াল করে যদি দেখা হয়, এসবের জন্য কোনো অর্থই খোয়াতে হয়না আমাদের। প্রকৃতির অপার, অকৃত্রিম দান এসব। আমরা মানুষ। জন্ম থেকে পরিচয় এটাই।
সৃষ্টিকর্তার নিখুঁত সৃষ্টি, মানুষ। মানুষ বলেই আমরা আনন্দে হাসি, দুঃখে কষ্ট পাই, অভিমানে সুপ্ত আগ্নেয়গিরির মতো জ্বলে ওঠি! মানুষ বলেই মানুষের সাহায্যে হাত বাড়াই। প্রতিনিয়ত মানুষ হওয়ার জন্যই লড়াই করি!
সৃষ্টির অপূর্ব নিপুণতায় সেরা হলেও আমাদের কিছু স্বভাবগত দিক আছে, যেটা পশুত্বের সামিল। যেমন: হিং¯্রতা, নির্মমতা, বদমেজাজ, হালাল- হারাম তোয়াক্কা না করা, নীতি নৈতিকতার পরোয়া না করা, নির্লজ্জতা, অত্যাচার-নিপীড়ন প্রভৃতি। মানুষের সাথে খারাপ ব্যবহার করাও পশুত্বের আরেকটা লক্ষণ।
সুন্দর আচরণের মাধ্যমে মানুষ কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারে। খারাপ আচরণকারীর প্রতি আমার যথেষ্ট মায়া হয়! সে নিজে বুঝেনা, এমনটা করে নিজে কতটুকু নিচে নেমে যায় সমাজের কাছে, পরিবারের কাছে! একটা চক্রব্যুহ ক্রমাগত ধাবিত হতে থাকে সে। সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা, পৃথিবীর সকল মানুষের অন্তর থেকে খারাপ আচরণ নির্মূল হোক।