অনগ্রসর জনগোষ্ঠীকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে কাজ করছে সরকার

5

সমাজকল্যাণ সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, বর্তমান সরকার অনগ্রসর জনগোষ্ঠীকে বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে কাজ করে যাচ্ছে। দেশের দুস্থ, দরিদ্র, অসহায় শিশু, প্রতিবন্ধী, কিশোর-কিশোরী, স্বামী পরিত্যক্তা নারী ও প্রবীণ ব্যক্তিসহ সুবিধাবঞ্চিত মানুষের কল্যাণে ব্যাপক কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। বয়স্ক ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, বিধবা ভাতা ও মুক্তিযোদ্ধা সম্মানি ভাতা বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন ভাতা প্রবর্তন করেছে। বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে অবহেলিত ও পিছিয়ে পড়া অনগ্রসর জনগোষ্ঠী অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ করে দেশের সার্বিক উন্নয়নে অবদান রাখতে পারবে।
তিনি ৫ আগস্ট নগরীর মুরাদপুরস্থ জেলা সমাজসেবা কার্যালয়, চট্টগ্রাম আয়োজিত অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ সমাপনী উপলক্ষে সনদ ও চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
চট্টগ্রাম অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মু. মাহমুদ উল্লাহ মারুফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলম। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমাজসেবা কার্যালয়ের পরিচালক কাজী নাজিমুল ইসলাম, অতিরিক্ত পরিচালক মোস্তফা মোস্তাকুর রহিম খান ও বাংলাদেশ জাতীয় সমাজকল্যাণ পরিষদের সদস্য এস.এম মোর্শেদ হোসেন। চট্টগ্রাম শহর সমাজসেবা কার্যালয়ের সমাজসেবা অফিসার মোহাম্মদ আলমগীরের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন জেলা সমাজসেবা কার্যালয় চট্টগ্রাম উপ-পরিচালক মো.ফরিদুল আলম।
স্বাগত বক্তব্যে উপ-পরিচালক মো. ফরিদুল আলম বলেন, ২০১২-২০১৩ অর্থবছর হতে অদ্যাবধি ২০০ জনকে ড্রেসমেকিং, বøক-বাটিক, বিউটিফিকেশন ও কম্পিউটার প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষণার্থীদের পক্ষ হতে বক্তব্য দেন লক্ষী দাশ। ৫০ দিনব্যাপি মনো-সামাজিক সুরক্ষা ও কর্মমুখী ট্রেনিং-এ ৫০ জন অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে ১৯ জন কম্পিউটার অফিস এপ্লিকেশন ও ৩১ জন সেলাই ট্রেডে প্রশিক্ষণ নেয়। অনুষ্ঠানে প্রত্যেক প্রশিক্ষণার্থীকে যাতায়াত ভাতা বাবদ ২০০০০ টাকা ও প্রশিক্ষণোত্তর এককালীন আর্থিক সহায়তা ১০০০০ টাকা করে মোট ১৫ লক্ষ টাকা বিতরণ করা হয়। পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন বিভাগীয় সমাজকল্যাণ ফেডারেশনের মহাসচিব হাফেজ মোহাম্মদ আমানউল্লাহ। এসময় অন্যন্যাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহকারি পরিচালক মোহাম্মদ শাহীনেওয়াজ, পিএইচটিসির তত্ত¡াবধায়ক মোহাম্মদ কামরুল পাশা ভুঁইয়া, সহকারি পরিচালক মোহাম্মদ ওয়াহীদুল আলম, আরটিসির অধ্যক্ষ মো.আফতাব উদ্দিন চৌধুরী, সহকারি পরিচালক শাহনাজ পারভীন, সমাজসেবা অফিসার মো.আশরাফ উদ্দিন, যোবায়ের আলম, পারুমা বেগম, মো. সোহানুর মোস্তফা শাহরিয়ার প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি