‘অগ্নিসংযোগের রাজনীতি রাজপথে প্রতিহত করা হবে’

38

হেলাল আকবর বাবর


আওয়ামীলীগ যুবলীগ স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগের যৌথ উদ্যোগে বিএনপি-জামায়াতের নৈরাজ্যের প্রতিবাদে গতকাল বিকেল তিনটায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি নন্দনকানন, নিউ মার্কেট প্রদক্ষিণ করে লাভলেইন মোড়ে এসে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
সাবেক ছাত্রনেতা শিবু প্রসাদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামীলীগ নেতা হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি তার পুরনো রূপে ফিরে এসেছে। জ্বালাও পোড়াও অগ্নি সন্ত্রাসের দ্বারা দেশে ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করে জনগণকে জিম্মির মাধ্যমে বাংলাদেশে ত্রাসে রাষ্ট্র কায়েম করতে চায়। বাংলাদেশ এখন উন্নয়নে মহাসড়কে উপনীত হয়েছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের মানুষের মাঝে সুখ-শান্তি বিরাজমান। এই স্থিতিশীল পরিবেশকে যারা নস্যাৎ করতে চায় তাদেরকে রাজপথে প্রতিহত করা হবে। এসময় আরও বক্তব্য রাখেন এম কুতুবউদ্দিন চৌধুরী, পংকজ রায়, সেলিম উদ্দীন জয়, নুরল আজিম রনি, হোসাইন আহমেদ রুবেল, তোফাজ্জল হোসেন জিকু, আকতার হোসেন সৌরভ, এহসানুল হক খোকা, আশিকুন্নবী, মাহমুদুল করিম, তৌহিদুল ইসলাম আরদীন, আনোয়ার পলাশ, শুভ দত্ত। উপস্থিত ছিলেন মো. ইলিয়াস, অজিত বিশ্বাস, খোকন চন্দ্র তাতী, মো. ওমর ফারুক, মো. তসলিম, মো. মোরশেদ আলম, আমিন মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, এ.কে মাসুদ,আকতার হোসেন, মো. জাহেদ, মো.দেলোয়ার, আমিনুল ইসলাম শাহনূর, কামরুল ইসলাম, আবু তাহের রানা, ফিরোজ আহমেদ, একরাম হোসেন, ইকবাল হোসেন, জুবাইদুল আলম আশিক, মো. রুবেল, ইয়াছির আরফাত রিকু, রতন চৌধুরী, রাকিব চৌধুরী, নিয়াজ উদ্দীন তামিম।

আরশেদুল আলম বাচ্চু


বিএনপি-জামায়াতের পরিকল্পিত দেশবিরোধী অপতৎপরতা, নৈরাজ্য ও নাশকতার প্রতিবাদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি উপ কমিটির সদস্য ও ওমরগনি এমইএস কলেজ ছাত্র সংসদ এর সাবেক জিএস আরশেদুল আলম বাচ্চুর নেতৃত্বে ওমরগনিএমইএস কলেজ ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন কলেজ থানা, ওয়ার্ড ইউনিট ছাত্রলীগের নেতা- কর্মীরা নগরীর জিইসি মোড়ে অবস্থান নেন।
সকালে থেকে অনুষ্ঠিত কমসূচিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক ও ওমরগনি এমইএস কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি হাবিবুর রহমান তারেক এর সভাপতিত্বে আয়োজিত সমাবেশে আরশেদুল আলম বাচ্চু বলেন, কোথাও বিএনপি জামায়াতের নৈরাজ্য ও নাশকতা সৃষ্টিকারীদের হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। পুরো চট্টগ্রাম আজ জননেত্রী শেখ হাসিনার ঘাঁটিতে পরিণত হয়েছে। নাশকতার বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষ জেগে উঠেছে। মানুষ শান্তিতে বসবাস করতে পছন্দ করে, বিএনপির আন্দোলনের প্রতি কোন সমর্থন নেই।
অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন ওসমান গনি আলমগীর, ইলিয়াছ উদ্দিন, জাকারিয়া দস্তগীর, মাহমুদুর রশীদ বাবু, শরফুল আনাম জুয়েল, কামরুল ইসলাম রাসেল, সাঈদুর রহমান শাকিল, জাহেদুল ইসলাম ইরাক, ইমাম উদ্দিন নয়ন, আনসারুল্লাহ সৌরভ, সুলতান মাহমুদ ফয়সাল, আরজু ইসলাম বাবু, সালাউদ্দিন বাবু, ইমতিয়াজ মনি, রুবেল সরকার, ওয়াহিদুল আলম, নুরুন নবী শাহেদ, রাকিব হায়দার, রবিউল ইসলাম খুকু, মাহফুজ হোসেন, শাহাদাত হোসেন হীরা, ইমাম হোসেন ইমন, আব্দুল আল আহাদ, আজিজুর রহমান, মুজিবুর রহমান, আবু সাইদ মুন্না, আওরাজ ভূঁইয়া রনক, সালাউদ্দিন কাদের আরজু, সোহেল তালুকদার, হাসান রুমেল, আশিকুর রহমান প্রিন্স, নুরুজ্জামান বাবু, ফারুক আহমেদ অপু, লোকমান হোসেন, গোলামুর রহমান রিজান, ফরহাদ উদ্দিন জিতু, ইউসুফ আলী বিপ্লব, জাবেদ রহিম মুন, ওমর গনি, নোটন দে লালু, নুরুল আবছার রাফি, রাইহান উদ্দিন ইশান, আবুল হাসনাত ইফাত, শ্রাবন বড়ুয়া, মাসুম বিল্লাহ, সৌরভ বড়ুয়া, ইমরান হায়দার, তানভীর ইভান, ইমরান হোসেন সাজেন, টনি দে, মেহেদী হাসান মিঠু, সুহৃদ বড়ুয়া শুভ, মোহাম্মদ সায়েম, শাহাদাত হোসেন, মামুন হোসেন, ফোরকান বিন কামাল, সাজ্জাদ হোসেন রিয়াদ, মাহিন স্যাম, ফজলুল্লাহ মাসুম, শফিকুল ইসলাম রবিন, আলিফ হোসেন, শাখাওয়াত রাফি, শাফায়েত উল্লাহ শুভ, হাসান তারেক সায়েম, ইফতু রেজা, মোহাম্মদ রাব্বি, নিলয় শুকুল অনিক, শাহাদাত হোসেন আবিদ, ফাহিম শাহ, আজিজুল হাকিম শাহীন, মাজেদুল আলম, এহসান, জাবেদ হাসান মিনহাজ, জহিরুল ইসলাম জুলহাস, আশরাফুল ইসলাম ফাহিম প্রমুখ। পরে বিক্ষোভ মিছিল বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। বিজ্ঞপ্তি