২৫ হাজার ফুট উঁচু থেকে টম ক্রুজের লাফ

32

হালো স্টান্ট দৃশ্যের শুটিংয়ের মুহূর্তে টম ক্রুজবহুতল একটি ভবন থেকে আরেকটিতে লাফ দিয়ে যাওয়া, উঁচু ভবনে ঝুলে থাকা, হাজার হাজার ফুট ওপরে উড়োজাহাজের বাইরে দাঁড়ানো; অ্যাকশন হিরো হিসেবে বিশ্বাসযোগ্যতা স্থাপনের জন্য এমন কতো কিছুই না করেছেন টম ক্রুজ। এবার ক্যামেরার সামনে আরেক অসম্ভবকে সম্ভব করলেন তিনি। এ যাত্রায় চিত্রনাট্যের প্রয়োজনে স্কাইডাইভ (উড়োজাহাজ থেকে লাফ) দিতে হলো তাকে।
হলিউডের আর কোনও অভিনেতার এমন কীর্তি নেই। এতদিন বিভিন্ন ছবিতে যা দেখা গেছে সেসব মূলত কম্পিউটারের কারসাজি। ‘মিশন: ইমপসিবল-ফলআউট’ ছবির জন্য স্কাইডাইভ দিয়েছেন টম ক্রুজ। এর মাধ্যমে আবারও গোয়েন্দা ইথান হান্ট চরিত্রে দেখা যাবে ৫৫ বছর বয়সী এই মার্কিন তারকাকে।
এ সংক্রান্ত ২ মিনিট ৩৭ সেকেন্ড ব্যাপ্তির একটি ভিডিও এসেছে ইউটিউবে। এতে দেখা যাচ্ছে, ২৫ হাজার ফুট উঁচুতে একটি উড়োজাহাজের পণ্য ওঠানামার দরজা দিয়ে শূন্যে লাফ দিচ্ছেন টম ক্রুজ। মাটি থেকে দুই হাজার ফুট উঁচুতে থাকাকালে নিজের প্যারাস্যুট উন্মুক্ত করেন তিনি।
এই স্টান্টকে বলা হয় ‘হালো’। শত্রæরা যেন শনাক্ত করতে না পারে সেজন্য কেবল উচ্চ প্রশিক্ষিত পেশাদার সামরিক সদস্যরা সাধারণত এ ধরনের স্কাইডাইভ দিয়ে থাকেন। কাজটা ছিল টম ক্রুজের জন্য বিশাল ঝুঁকির। চুল পরিমাণ ভুল হলেই ঘটে যেতে পারতো বড় বিপদ। ঘণ্টায় ২২০ মাইল গতিতে সামনের দিকে ঝুঁকে নামতে হচ্ছিল বলে বায়ুচাপের কারণে তার অসুস্থ হয়ে পড়ার আশঙ্কা ছিল। এছাড়া দুশ্চিন্তা আর মানসিক স্থিতিশীলতা হারানোর মতো পীড়ায়ও ভুগতে পারতেন তিনি। এই দৃশ্য নিয়ে টম ক্রুজের সঙ্গে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে আলোচনা করেছেন পরিচালক ক্রিস্টোফার ম্যাককুয়ারি। শুটিংয়ের আগে ১০০ বারেরও বেশি অনুশীলন করে নিয়েছিলেন তিনি। মহড়ার জন্য বানানো হয়েছিল বায়ু নিরোধক যন্ত্র। সতর্কতার জন্য টম ক্রুজকে দেওয়া হয় বিশেষ হেলমেট। সেই সঙ্গে যথাযথ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা তো ছিলই। শেষ পর্যন্ত এক টেকেই শটটি ওকে হয়েছে। এজন্য সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকারকে ধন্যবাদ দিয়েছেন টম ক্রুজ। একই ছবির আরেকটি ঝুঁকিপূর্ণ দৃশ্যের কাজ করতে গিয়ে গত বছর আহত হন টম ক্রুজ। ওইবার এক ভবন থেকে আরেকটি ভবনে লাফ দিতে গিয়ে তার গোড়ালি মচকে গিয়েছিল। ‘মিশন : ইমপসিবল-ফলআউট’ হলো ‘মিশন: ইমপসিবল’ সিরিজের ষষ্ঠ কিস্তি। এটি মুক্তি পাবে আগামী ২৭ জুলাই। এতে আরও অভিনয় করেছেন ‘সুপারম্যান’ তারকা হেনরি ক্যাভিল, সিমন পেগ, অ্যালেক ব্যাল্ডউইন, রেবেকা ফার্গুসন।