কাপাসগোলা সিটি কর্পোরেশন মহিলা কলেজ

২১ বছরেও মন্ত্রণালয়ে নাম সংশোধন হয়নি

ওয়াসিম আহমেদ

19

কাপাসগোলা সিটি কর্পোরেশন গালর্স স্কুল এন্ড কলেজ থেকে কলেজ শাখাকে আলাদা করে কাপাসগোলা সিটি কর্পোরেশন মহিলা কলেজ করা হয়। ১৯৯৭ সালে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন পায় মহিলা কলেজটি। এছাড়াও ২০০৬ সালে চট্টগ্রাম মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড স্কুল থেকে আলাদা করে কলেজটির নামকরণে পরিপত্র জারি করে। কিন্তু তারপরও এমপিও, ব্যানবেইস ও মন্ত্রণালয়ে আগের নামটি রয়ে গেছে। গতকাল নাম সংশোধন করতে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের মহাপরিচালকে উপানুষ্ঠানিক পত্র দিয়েছেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।
পত্রে উল্লেখ করা হয়, ১৯৯৪ সালে কাপাসগোলা সিটি কর্পোরেশন গালর্স স্কুল এন্ড কলেজ অনুমোদন লাভ করে। এরপর ১৯৯৭ সালে কলেজকে আলাদা করে কাপাসগোলা সিটি কর্পোরেশন মহিলা কলেজ নামকরণ করা হয়। কর্পোরেশনের আবেদনের প্রেক্ষিতে ওই সময় শিক্ষা মন্ত্রণালয় কলেজটিতে বিজ্ঞান ও ব্যবসা শিক্ষা শাখা খোলার অনুমতি প্রদান করে। ২০০৬ সালে চট্টগ্রাম মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড স্কুল থেকে কলেজকে আলাদা করে কলেজটির নামে পরিপত্র জারি করে।
এমনকি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে কলেজটি অধিভুক্ত করার সময় কাপাসগোলা সিটি কর্পোরেশন মহিলা কলেজ নামে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এরপর থেকে স্কুল এবং কলেজ আলাদাভাবে পরিচালিত হয়ে আসছে। এমনকি তাদের আলাদা ইআইআইএন (এডুকেশনাল ইনস্টিটিউট আইডেন্টিফিকেশন) নম্বরও রয়েছে। কিন্তু তারপরও এমপিও, ব্যানবেইস ও মন্ত্রণালয়ে কাপাসগোলা সিটি কর্পোরেশন গালর্স স্কুল এন্ড কলেজ নামে অন্তর্ভুক্ত রয়ে গেছে। যার কারণে কলেজে ডিগ্রি কোড আনয়ন ও ডিগ্রি পর্যায়ে এমপিও ভুক্তিকরণসহ প্রশাসনিক কাজে নানা জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে।
গতকাল এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে মাধ্যমকি ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের মহাপরিচালক প্রফেসর মাহাবুবুর রহমানকে উপানুষ্ঠানিক পত্র প্রেরণ করেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।