প্রতারণার স্বীকার হচ্ছে সাধারণ মানুষ

হাটহাজারীতে ভুয়া চিকিৎসকের হিড়িক

হাটহাজারী প্রতিনিধি

28

বিদ্যালয়ের মাধ্যমিকের গন্ডি পেরুতে না পারলে বিশেষজ্ঞ (মা, শিশু, মেডিসিন ও সার্জারী) চিকিৎসক। যদিও নেই তার কোন এমবিবিএস ডিগ্রি। এছাড়া নেই শিক্ষাগত যোগ্যতাও। তবুও সে ব্যবস্থাপত্রে ও ফার্মেসির নাম ফলকে তার চিকিৎসক (ডা.) পদবী ব্যবহার করে দীর্ঘদিন ধরে চিকিৎসা সেবাগ্রহীতার (সাধারণ জনগণ) সাথে চিকিৎসা সেবা দেয়ার নামে প্রতারণা করে আসছেন।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খবর পেয়ে গত ৩০ সেপ্টেম্বর হাটহাজারী উপজেলার ধলই ইউনিয়নের কাটিরহাট বাজারের শাহ আমানত ফার্মেসিতে মো. গিয়াস উদ্দিন (৩০) নামের এক ভুয়া চিকিৎসককে হাতেনাতে ধরে তার ফার্মেসির সাইনবোর্ড ধ্বংস করাসহ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। উক্ত অভিযানটি পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শরীফ উল্লাহ।
এ সময় ফার্মেসিটি সিলগালা করে দেয় ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়া চিকিৎসা পেশার জন্য যে শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রয়োজন হয় তার কোনো কাগজপত্র দেখাতে না পারায় গিয়াস উদ্দিন ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে ভুয়া চিকিৎসক প্রমাণিত হলে আদালত তার শিক্ষাগত যোগ্যতার ভুয়া সার্টিফিকেট, ব্যাবস্থাপত্র ও ড্রাগ লাইসেন্স জব্দ করা হয় এবং মুচলেখা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়। সূত্রে জানা যায়, হাটহাজারী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ভুয়া চিকিৎসকের হিড়িক পড়েছে। যত্রতত্র গ্রাম-গঞ্জে, পৌর সদরে, সড়ক, মহাসড়কের পাশে চেম্বার খুলে বসে আছেন এসব ভুয়া চিকিৎসক। তারা ভুয়া সার্টিফিকেট তৈরি করে ফার্মেসিতেই বসে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছে অনেক প্রতারক। নানা প্রতারণার স্বীকার হচ্ছে অনেক জনসাধারণ। তাদের চিকিৎসা সেবা নিয়ে উল্টো অপচিকিৎসার শিকার হচ্ছে সাধারণ মানুষ। জানতে চাইলে হাটহাজারী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শরীফ উল্লাহ জানান, প্রতিনিয়ত এক শ্রেণির লোভী ভুয়া চিকিৎসক যত্রতত্র ফার্মেসি খুলে দিয়ে নানা ধরনের রোগীর সঙ্গে প্রতারণা করে আসছে।
এতে রোগীরা একদিকে অর্থ হারাচ্ছে অন্যদিকে ভুল ওষুধ সেবন করে বিভিন্ন জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ছে। অসাধু ভুয়া ডাক্তার সেজে নানা প্রতারণার অভিযোগ পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে শাহ আমানত ফার্মেসি নামের এ দোকানিকে জরিমানা, অবৈধ ব্যবস্থাপত্র, ভুয়া ড্রাগ লাইসেন্স জব্দসহ ফার্মেসিটিকে সিলগালা করা হয়েছে। জনস্বার্থে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।
প্রসঙ্গত, গত ২৮ সেপ্টেম্বর উপজেলার বুড়িশ্চর ইউনিয়নের তেঁতুল তলা নূর আলী বাড়ি নামক এলাকার নাঈম নয়ন ফার্মেসি থেকে নার্গিস আকতার নামে এ ভুয়া মহিলা চিকিৎসককে আটক করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিট্রেট ও হাটহাজারী উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমিন। যদিও পরে ইউএনও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের অনুরোধে মুচলেকা দিয়ে আর চিকিৎসা করবে না মর্মে ছেড়ে দেয়।