স্বাধীনতার দাবিতে পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত আজাদ কাশ্মিরে মিছিল

1

পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত আজাদ কাশ্মিরে কয়েক হাজার মানুষ স্বাধীনতার দাবিতে সীমান্ত অভিমুখে মিছিল করেছেন। ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে আরোপিত বিধিনিষেধ প্রত্যাহার ও স্বাধীনতার দাবিতে শনিবার দুই কাশ্মিরকে বিভক্ত করা নিয়ন্ত্রণ রেখার উদ্দেশ্যে ‘ফ্রিডম মার্চ’ নামের এই মিছিল শুরু হয়। অবরুদ্ধ কাশ্মিরের পরিস্থিত পর্যবেক্ষণ করতে সেখানে মার্কিন এক সিনেটরকে প্রবেশের অনুমতি না দেওয়ার একদিন পর এই মিছিল করলেন কাশ্মিরিরা। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ভয়েস অব আমেরিকা এ খবর জানিয়েছে।
পরমাণু শক্তিধর দুই দেশ ভারত ও পাকিস্তান উভয়ই কাশ্মিরকে নিজেদের বলে দাবি করে। ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ উপনিবেশ থেকে স্বাধীনতা লাভের পর ভারত-পাকিস্তান তিনটি যুদ্ধের মধ্যে দুটি অনুষ্ঠিত হয়েছে কাশ্মির ইস্যুতে। গত ৫ আগস্ট (সোমবার) ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের মধ্য দিয়ে কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার ও বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয় বিজেপি নেতৃত্বাধীন ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। এর প্রতিবাদে ভারতের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক হ্রাস করাসহ ইসলামাবাদে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনারকে বহিষ্কার করেছে পাকিস্তান। দুই দেশের সীমান্তে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। কাশ্মির সীমান্তে চলছে টানটান উত্তেজনা। ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের মানবাধিকার ইস্যুতে পাকিস্তান সোচ্চার হলেও তাদের নিয়ন্ত্রিত আজাদ কাশ্মিরেও গত কয়েক দিন ধরে ব্যাপক ধর-পাকড় হয়েছে।
দুই দেশের কাছে কাশ্মিরের স্বাধীনতা দাবি করে শ্লোগান দিতে দিতে অগ্রসর হচ্ছিলো পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের বিক্ষোভকারীরা। তবে নিয়ন্ত্রণরেখা কয়েক কিলোমিটার আগে পুলিশ ব্যারিকেড দিয়ে তাদের বাধা দেয়। ইজাজ আহমেদ নামের ৬৪ বছর বয়সী এক চিকিৎসক জানিয়েছেন, ‘আমি কাশ্মিরি ভাইদের প্রতি সংহতি জানাতে এই মিছিলে যাচ্ছি। যারা দুই মাস ধরে কারফিউ’র মধ্যে বসবাস করছে।’ পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের রাজধানী মুজাফফরাবাদে শনিবার এই মার্চ শুরু করে জম্মু-কাশ্মির লিবারেশন ফ্রন্টের (জেকেএলএফ) সমর্থকরা। তারা ভারত সীমান্তের নিয়ন্ত্রণরেখার উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। এর আগে ১৯৯২ সালে একবার ওই নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রমের চেষ্টা করেছিলো জেকেএলএফ। তবে সে সময় তাদের প্রতিহত করতে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে ১২ জন নিহত হয়।
মার্কিন সিনেটর ক্রিস ভ্যান হলেনকে ভারত নিয়ন্ত্রতি কাশ্মিরে প্রবেশ করতে না দেওয়ার পর তিনি পাকিস্তানে যান। দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় শহর মুলতানে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। হলেন বলেন, ‘আমরা মনে করে সেখানকার পরিস্থিতি নিজ চোখে দেখার জন্য সাংবাদিক ও অন্যান্যদেরকে প্রবেশ অনুমতি দেওয়া উচিত।’ এবার পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান আন্দোলনকারীদের নিয়ন্ত্রণরেখা অতিক্রম করতে নিষেধ করেছেন। তিনি বলেন, ‘এই ইস্যুকে কেন্দ্র করে সেখানে কাশ্মিরিদের ওপর নির্যাতন বাড়িয়ে দিতে পারে ভারত।’ বাংলাপিডিয়া