সুবিধাবঞ্চিতদের আর্থিক সহায়তা চসিকের

22

ইউএনডিপি ইউকে-এইড এর সহায়তায় প্রান্তিক জনগোষ্টির মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ করেছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন গত বৃহষ্পতিবার সকালে নগরীর বকশীরহাট ওয়ার্ডে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। প্রতিজনকে ১৫ শ টাকা করে মোট ২০ হাজার ১শ ৪৮ জনের মাঝে ৩ কোটি ২ লাখ ২২ হাজার নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়। এই অর্থ সহায়তা উপকারভোগীদের মোবাইল একাউন্টে পৌঁছে যাবে। প্রান্তিক জনগোষ্টির জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় পরিচালিত সিডিসি’র নির্বাচিত প্রাথমিক দলের সদস্যদের মাঝে এই টাকা বিতরণ করা হবে। ৩৫ নং বকশির হাট ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাজী নুরুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, মেয়রের একান্ত সচিব আবুল হাশেম,প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্পের টাউন ম্যানেজার (ভারপ্রাপ্ত), প্রকৌঃ মোঃ সাইফুর রহমান চৌধুরী ও টাউন ফেডারেশন এর চেয়ারপার্সন কোহিনুর আক্তার। নগদ অর্থ বিতরণকালে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, কোভিড-১৯ করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সুস্থ থেকে বেঁচে থাকাটা এখন জরুরী ইস্যু। আর সুস্থভাবে বেঁচে থাকতে হলে খাদ্য সহায়তার বিষয়টি জরুরী তাই এই নগদ অর্থ বিতরণ। মেয়র বলেন, আমি এবং আমার সরকার চায় একজন মানুষও যাতে খাদ্যের অভাবে না থাকে। তিনি করোনাকালীন সময়ে সবাইকে সচেতন হয়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পাশাপাশি জরুরী প্রয়োজন ছাড়া নিজ ঘরে অবস্থান করার আহবান জানান। মেয়র জরুরী প্রয়োজন যেমন ্ওষুধ, খাদ্যদ্রব্য ও গুরুতর অসুস্থতায় হাসপাতালের প্রয়োজন ছাড়া এখন ঘর থেকে বের হওয়া ঝুঁকিপূর্ণ বলে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, সবকিছুর আগেই জীবন এই বিষয়টি নগরবাসীকে খেয়াল রাখতে বলেন। উল্লেখ্য প্রান্তিকজনগোষ্টির জীবন মান উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ইতোমধ্যে ৮৪ হাজার পরিবারের মাঝে ৫ টি করে প্রায় ৪ লক্ষ ২৩ হাজার সাবান, ৩৬৪ সিডিসিতে ৩৮৪টি হাত ধোয়ার পয়েন্ট স্থাপন, কয়েকটি এতিমখানায় হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সেখানে দেয়া হয়েছে ৪৫ হাজার সাবান। এছাড়াও গর্ভবতী মায়েদের জন্য ১ হাজার দিনের জরুরী পুষ্টি খাদ্য সহায়তায় ১ হাজার ৬শ ৭৪ জন গর্ভবর্তী মাকে মাসিক জরুরী খাদ্য সহায়তা দেয়া হচ্ছে। বিজ্ঞপ্তি