সীতাকুÐ প্রতিনিধি

সীতাকুÐে ইয়ার্ডে অগ্নিকাÐে ৪ শ্রমিক দগ্ধ

29

 

সীতাকুÐে শিপব্রেকিং ইয়ার্ডে স্ক্র্যাপ জাহাজ কাটার সময় অগ্নিকাÐের ঘটনা ঘটেছে। এতে ইয়ার্ডের চার শ্রমিক দগ্ধ হয়ে ভাটিয়ারী বিএসবিএ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। গতকাল রবিবার সন্ধ্যা ৭ টায় সোনাইছড়ি ইউনিয়নের কাসেম জুট মিলস্ লালবেগ এলাকার সাগর উপকূলে অবস্থিত হাজী লিয়াকত আলী ও আবুল হাশেম এর মালিকানাধীন তানিয়া শিপব্রেকিং ইয়ার্ডে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
অগ্নিদগ্ধরা হলেন-ময়মনসিংহ জেলার নামধাইল কালেনগা এলাকার

মো.হযরত আলী মাস্টারের পুত্র পিটারম্যান মো.রনি (২৬), মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া থানার টিলাগাঁও লংলা চা-বাগান এলাকার দুর্গাচরণের পুত্র শ্রী স্বপন (২২), গাইবান্ধা জেলার সাইদুল্ল্যাহ থানার খদ্দক মলপুর এলাকার মো. আইয়ুবের পুত্র মো.মোহন (২১), ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইল মৌসল্লী ফরিদা খানয়া এলাকার মো.সায়েদ আলীর পুত্র মো.সাইদুল্ল্যাহ (৩৫)। আহতদের শরীরের শতকরা ১৫ ভাগ পুড়ে গেছে।
জানা যায়, সন্ধ্যায় শিপব্রেকিং ইয়ার্ডে আমদানী করা স্ক্র্যাপ জাহাজের ইঞ্জিন কক্ষে কাজ করছিলেন ৮-১০ জন শ্রমিক। এসময় কক্ষে জমে থাকা পুরানো তেলে আগুনের ফুলকি পড়ে। এতে ইঞ্জিন কক্ষের ভেতরে আগুন লেগে যায় এবং ৪ শ্রমিক দগ্ধ হন। খবর পেয়ে কুমিরা ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় এক ঘন্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। দগ্ধ চার শ্রমিককে উদ্ধার করে ভাটিয়ারী বিএসবিএ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানান কর্মরত ইয়ার্ড শ্রমিকরা।
এ বিষয়ে ইয়ার্ড মালিক আবুল হাসেম বলেন,‘পুরাতন জাহাজে কাজ করার সময় ইঞ্জিন রুমে আগুন লেগে কয়েকজন শ্রমিক আহত হলে আমরা তাদের মেডিকেলে ভর্তি করেছি।’
সীতাকুÐের কুমিরা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা আবদুল্লাহ হারুণ পাশা জানান,‘আমরা অগ্নিকাÐের খবরে শিপব্রেকিং ইয়ার্ডে পৌঁছে প্রায় এক ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নেভাতে সক্ষম হই।’
সীতাকুÐ থানার অফিসার ইনচার্জ ইফতেখার হাসান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,‘ইয়ার্ডে পুলিশ পাঠিয়েছি, কিন্তু কিছুই পাইনি। তবে ভাটিয়ারী বিএসবিএ হাসপাতালে গিয়ে ৪ শ্রমিককে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় পাওয়া গেছে।’