সিটি কর্পোরেশন শিক্ষা ও চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান দৃষ্টিনন্দন করার উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক

39

নিজেদের তত্তাবধানে পরিচালিত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও চিকিৎসালয়গুলোকে সংষ্কার ও দৃষ্টিনন্দন করার উদ্যোগ নিয়েছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। এজন্য আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে প্রতিষ্ঠানগুলোর ভবনসমূহের বাস্তব চিত্র উপস্থাপন করার নির্দেশ দিয়েছেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। গতকাল (রবিবার) দুপুরে প্রকৌশল বিভাগের মাসিক সমন্বয় সভায় মেয়র এ নির্দেশ দেন।
চসিক কেবি আবদুচ ছত্তার মিলনায়তনে প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত যাবতীয় সেবা ও কাজের ৮০ ভাগ প্রকৌশল বিভাগের মাধ্যমে হয়ে থাকে। প্রকৌশল বিভাগে কর্মরতদের আন্তরিকতা, সততা ও নিষ্ঠার উপর কর্পোরেশনের সুনাম ও সুখ্যাতি নির্ভর করে। একে অপরের জবাবদিহিতার উপর উন্নয়ন কার্যক্রম গতিশীলতা পাবে। আগামী বর্ষা শুরুর আগেই সড়কসমূহের সংষ্কার, নালা সংস্কারসহ অবকাঠামোগত সব কার্যক্রম শেষ করতে হবে। অঙ্গীকার, দরদ ও জবাবদিহিতা থাকলে প্রতিষ্ঠানকে গতিশীল করা কোন কঠিন কাজ নয়।’
মেয়র আরো বলেন, ‘জনবল, ইকুইপমেন্ট, অর্থ ও পরিকল্পনা শতভাগ থাকার পরও যদি কারো কোন ধরনের অনিয়ম বা আন্তরিকতার ঘাটতি পরিলক্ষিত হয় অথবা দায়িত্বে কারো গাফেলতি কিংবা দায়সাড়াগোছের দায়িত্ব পালন করে কেউ ভাগ্য পরিবর্তনের চিন্তা করেন তাহলে তাদেরকে শাস্তি ভোগ করতে হবে। এ ক্ষেত্রে ছাড় পাওয়ার কোন সুযোগ থাকবে না।’ তিনি নিজেদের মধ্যে কাদা ছোঁড়াছুড়ি, একে অপরকে নিন্দা করার বদঅভ্যাস ত্যাগ করে প্রতিষ্ঠানের স্বার্থকে মাথায় রেখে সঠিকভাবে স্ব স্ব কর্ম সম্পাদন করার পরামর্শ দেন।
সভায় চসিক পরিচালিত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও চিকিৎসালয়ের ভবনসমূহে সরেজমিনে জরিপ পরিচালনা করে ভবনসমূহের বাস্তব চিত্র এক সপ্তাহের মধ্যে উপস্থাপন, ভবনসমূহ সংষ্কার এবং দৃষ্টিনন্দন করার বিষয়ে প্রস্তাবনা উত্থাপন, প্রকৌশল বিভাগকে বাস্তবতার নিরিখে সেবা নিশ্চিত করার দিক নির্দেশনা দেন মেয়র।
সভায় প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. রফিকুল ইসলাম, তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মনিরুল হুদা, আনোয়ার হোছাইন, আবু সালেহ, কামরুল ইসলাম, নির্বাহী প্রকৌশলী সিভিল, যান্ত্রিক ও বিদ্যুৎ সহ সহকারী প্রকৌশলী ও উপ সহকারী প্রকৌশলীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সমন্বয় সভায় স্ব স্ব দায়িত্ব সংক্রান্ত বিষয়ে সকলে মেয়র বরাবরে রিপোর্ট পেশ করেন। সভায় অবসরে যাওয়া নির্বাহী প্রকৌশলী এস এম আইয়ুব, সহকারী প্রকৌশলী জামাল উদ্দিনকে বিদায় সংবর্ধনা প্রদান করা ছাড়াও এয়ারপোর্ট সড়কে বাগান নির্মাণ করে দৃষ্টিনন্দন করার কাজে সফলতা অর্জনের জন্য নির্বাহী প্রকৌশলী সুদীপ বসাক ও অসীম বড়ুয়াকে প্রকৌশল বিভাগের পক্ষ থেকে পুরস্কৃত করা হয়।