সালেহ আহমেদের ভক্ত ছিলেন হুমায়ূন : শাওন

10

সদ্য প্রয়াত অভিনেতা সালেহ আহমেদকে স্মরণ করলেন তার সহশিল্পী ও নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের জীবনসঙ্গী মেহের আফরোজ শাওন।
হুমায়ূন আহমেদের নির্মাণেই শুরু হয় সালেহ আহমেদের অভিনয় জীবন। দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে অভিনয় করেছেন তিনি। অর্জন করেছেন দর্শকের ভালোবাসা। দীর্ঘদিন অসুস্থতার পর গত ২৪ এপ্রিল জনপ্রিয় এ অভিনেতা মৃত্যুবরণ করেন।
তার মৃত্যুতে সাধারণ দর্শকের পাশাপাশি শোক জানিয়েছেন সহকর্মী শিল্পী ও নির্মাতারাও। হুমায়ূনের জীবনসঙ্গী হিসেবে সালেহ আহমেদকে নিয়ে অনেক স্মৃতিই জমে আছে মেহের আফরোজ শাওনের মনে। সালেহ আহমেদের প্রয়াণের পর শাওন তার ফেইসবুকের দেয়ালে খুলে বসলেন সেই স্মৃতির ঝাঁপি।
তিনি লিখেছেন, “মানুষটাকে ১৯৯১ থেকে চিনি। ‘জননী’ নাটকে কাজ করতে গিয়ে। কতো কাজ একসাথে! ‘শ্রাবণ মেঘের দিন’ ছবিতে আমার বাবা। অনেক রসিক ছিলেন মানুষটা। এমন উপাদেয়ভাবে গল্প বলতে পারতেন! তার মুখে সাধারণ ঘটনাও রসাত্মক গল্পে পরিণত হত। হুমায়ূন আহমেদ তার গল্প বলার ভক্ত ছিলেন। এই মানুষটার ভক্ত ছিলেন। তার অভিনয়ের ভক্ত ছিলেন।”
শাওন মনে করেন ‘উড়ে যায় বকপক্ষী’ নাটকে তার সঙ্গে দেওয়া একটি জনপ্রিয় সংলাপও-“‘পুষ্প, তুমি কি পেরাইভেটে গান করো?’ ওই ধারাবাহিকে এই সংলাপটা বলার সময় তার মুখভঙ্গি, তার অঙ্গভঙ্গি এই মুহূর্তেও চোখের সামনে ভাসছে!”
শাওন লিখেছেন, “দীর্ঘদিন বিছানায় পড়ে ছিলেন। পরম করুণাময় তার কষ্টের অবসান করেছেন।
“সালেহ চাচা, এবার জমিয়ে গল্প করুন হুমায়ূনের সাথে…।”
বগুড়ার সারিয়াকান্দির সন্তান সালেহ আহমেদ চাকরি করেছেন জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরে। এক সময় মঞ্চ নাটকের সঙ্গে যুক্ত এই অভিনেতা ১৯৯১ সালে সরকারি চাকরি থেকে অবসরে যাওয়ার পর পুরোপুরি অভিনয়ে মন দেন।
অয়োময়, কোথাও কেউ নেইসহ হুমায়ূন আহমেদের বহু নাটকে সালেহ আহমেদের অভিনয় টেলিভিশন দর্শকদের মনে গেঁথে আছে। হুমায়ূন আহমেদের ‘আমার আছে জল’, ‘শ্রাবণ মেঘের দিন’ ও ‘আগুনের পরশমণি’ সিনেমাতেও তিনি অভিনয় করেছেন।