সালমানের পরামর্শে নাম বদল

17

আলিয়া আদভানি। জন্ম ১৯৯২ সালের ৩১ জুলাই। বাবা জগদীপ আদভানি সিন্ধি হিন্দু, পেশায় ব্যবসায়ী। মা জেনেভিভে জাফরি ক্যাথলিক ধর্মাবলম্বী এবং স্কটিশ, আইরিশ, পর্তুগিজ ও স্পেনীয় বংশোদ্ভূত। তিনি চলচ্চিত্রের সঙ্গে যুক্ত হন ২০১৪ সালে। প্রথম ছবি ‘ফাগলি’। এদিকে ২০১২ সালে ‘স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার’ ছবি দিয়ে বলিউডে নিজের মজবুত অবস্থান তৈরি করেন আলিয়া ভাট। এ ছাড়া তাঁর বাবা মহেশ ভাট আর চাচা মুকেশ ভাট অনেক বছর আগে থেকেই ভারতের চলচ্চিত্র জগতে যথেষ্ট প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব।
তাই এত কিছুর মাঝে একই নামে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা সহজ কথা না। ঠিক ওই সময় বলিউডের ‘ভাইজান’ সালমান খানের কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ পেলেন, ‘নামটাই বদলে দাও।’ পরামর্শ পছন্দ হলো। ‘কিয়ারা’ নামটা অনেক দিন আগে থেকেই তাঁর কানে লেগে আছে। ‘আনজানা-আনজানি’ ছবিতে প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার চরিত্রের নাম ছিল ‘কিয়ারা’। তখন ভেবেছিলেন, যেদিন নিজের মেয়ে হবে, তার নাম রাখবেন কিয়ারা।
কিন্তু তত দিন তো অনেক সময়। তাই আলিয়া বাদ দিয়ে নিজের নাম বদলে রাখলেন কিয়ারা আদভানি। সেই নাম নিয়েই বলিউডে দ্রুত পরিচিতি পেলেন। ইদানীং নাকি বাসায়ও তাঁকে কিয়ারা নামেই সবাই ডাকছেন। এ ব্যাপারে কিয়ারা আদভানি বলেছেন, ‘আমি নিজেও চাইনি, আলিয়া ভাটের সঙ্গে দর্শক আমাকে গুলিয়ে ফেলুক।’
হিন্দির পাশাপাশি তেলেগু ছবিতেও অভিনয় করছেন কিয়ারা আদভানি। এ বছর তাঁর দারুণ ব্যবসা সফল ছবি ‘কবির সিং’। ২৭ ডিসেম্বর মুক্তি পাচ্ছে তাঁর খুব আলোচিত ছবি ‘গুড নিউজ’। কিয়ারা আদভানি বললেন, ‘তা কেন হবে! আলিয়া আদভানি থাকবে। মাঝে কিয়ারা শব্দটা যুক্ত করব। তাতে আমার নাম হবে আলিয়া কিয়ারা আদভানি অথবা কিয়ারা আলিয়া আদভানি। আশা করছি, তখন আর সমস্যা হবে না।’