সাবিনাদের না খেলার প্রভাব পড়েছে র‌্যাঙ্কিংয়ে

7

ছেলেদের ফুটবলে নিয়মিত আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা হলেও মেয়েদের ফুটবলে তা ব্যতিক্রম। সাবিনা-মৌসুমীদের সেভাবে ম্যাচ খেলার সুযোগ কই? যার প্রভাবটা পড়েছে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে। সর্বশেষ চার ধাপ পিছিয়ে এখন র‌্যাঙ্কিং দাঁড়িয়েছে ১৩৪!
গত বছরের মার্চে সাফ ফুটবলে খেলেছে মেয়েরো। তারপর থেকে সাবিনাদের অলস সময় কাটাতে হয়েছে। এরমধ্যে এসএ গেমস ফুটবল হলেও তাতে অংশ নেয়নি। এক বছরের বেশি সময় ধরে আন্তর্জাতিক ফুটবলে অংশ না নেওয়ায় র‌্যাঙ্কিং তাই নিম্নমুখী! মাঝে তো র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের নামই ছিল না!
জাতীয় দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনও মনে করেন বেশি বেশি ম্যাচ খেললেই অবস্থার পরির্তন সম্ভব, ‘বেশি বেশি ম্যাচ খেলতে পারলে হয়তো র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে থাকার সুযোগ হতো। তারপরেও আমরা বয়সভিত্তিক অনেক খেলাই খেলেছি। কিন্তু জাতীয় দলের খেলা হয়নি। এবার তো চার ধাপ পিছিয়েছি। এর আগে তো না খেলার কারণে জাতীয় দলের র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের নামই ছিল না।’