সাতকানিয়া-সীতাকুন্ড সড়কে ঝরল দুই প্রাণ

সাতকানিয়া ও সীতাকুন্ড প্রতিনিধি

সীতাকুন্ড ও সাতকানিয়া উপজেলায় দুর্ঘটনায় দুইজন নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন মো. হাবেল ও নুরুল আমিন। গত সোমবার ভোর ও রবিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত হাবেল টাঙ্গাইল জেলার ধনবাড়ী থানার রূপশান্তি গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে এবং নুরুল আমিন জামতলী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আবদুল গফুরের ছেলে।
সীতাকুন্ড প্রতিনিধি জানান, গতকাল সোমবার ভোর ৫টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সীতাকুন্ডের বাড়বকুন্ডে একটি ফিলিং স্টেশনে নিজের গাড়ির চাকায় পিষ্ট হন হেলপার মো. হাবেল।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ফিলিং স্টেশন থেকে ট্রাক বের করার আগে হেলপার গাড়ির পেছনে চাকা চেক করছিলেন। এ সময় আকস্মিকভাবে তিনি গাড়ির চাকায় পিষ্ট হন। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
অপরদিক সাতকানিয়া প্রতিনিধি জানান, সাতকানিয়ার কেরানিহাট এলাকায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে মাহেন্দ্র গাড়ি থেকে পড়ে নুরুল আমিন নামে এক রোহিঙ্গা নাগরিক নিহত হয়েছেন।এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার জানান, চার চাকার গাড়ির পেছনে দাঁড়িয়েছিলেন নুরুল আমিন। হঠাৎ মাথা ঘুরে পড়ে যান তিনি। পরে রাত একটার দিকে চমেক হাসপাতালে আনা হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।