পুলিশ কল্যাণ সভায় ডিআইজি

সততার সাথে পুলিশ সদস্যদের দায়িত্ব পালন করতে হবে

রাঙামাটি প্রতিনিধি

2

বাংলাদেশ পুলিশ চট্টগ্রাম রেঞ্জের নতুন ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন বিপিএম (বার)ও পিপিএম (বার) প্রধান অতিথি হিসেবে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পুলিশের বিশেষ কল্যাণ সভায় উপস্থিত ছিলেন। নতুন ডিআইজকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান রাঙামাটি পুলিশ সুপার মো. আলমগীর কবীর পিপিএম-সেবা। শহরের সুখীনীলগঞ্জ পুলিশ লাইনস নতুন ভবনের সামনে ডিআইজকে জেলা পুলিশের একদল চৌকস দল তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করেন। পরে ডিআইজ পুলিশ লাইনস এ একটি নারিকেলের চারা রোপন করেন। গত সোমবার জেলা পুলিশের বিশেষ কল্যাণ সভায় অংশ গ্রহন করেন ডিআইজ। জেলা পুলিশের বিশেষ কল্যাণ সভায় উপস্থিত পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশ্যে সম্মানিত ডিআইজি বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ থেকে এযাবৎকালে মহামারি করোনাকালিন পর্যন্ত জাতির প্রতিটি ক্রান্তিলগ্নে পুলিশের অন্যন্য ভূমিকা ছিল। দেশের বাহিরেও পুলিশ গৌবর অর্জন করেছে। তারপরও গুটিকয়েক পুলিশের অপেশাদারিত্ব ও অনিয়মের কারণে গোলা পুলিশ বাহিনীর ভাবমুর্তি বিনষ্ট হয়। প্রতিটি পেশার মত পুলিশ বিভাগের কর্মকান্ডও সাধারণ মানুষ দ্ধারা মূল্যায়িত হয়। সাধারণ মানুষই পুলিশকে তার ভাল কাজের জন্য প্রশংসা করেন, আবার খারাপ কাজের জন্য নিন্দা করেন। তাই সিদ্ধান্ত আপনাদের ভাল কাজ দ্ধারা মানুষের মনে স্থান করে নিবেন নাকি নিন্দিত হবেন। ডিআইজ আনোয়ার আরো বলেন, প্রত্যেক পুলিশ সদস্যকে সততা, পেশাদারিত্ব ও মানবিকতার সহিত দায়িত্ব পালন করতে হবে। দায়িত্ব পালনের সময় প্রচলিত আইনের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করতে হবে। জনগণের প্রতি সেবার মনোভাব নিয়ে আচারণ ও পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে হবে। শৃঙ্খলার ক্ষেত্রে কঠোর ও পুলিশের কল্যাণের ক্ষেত্রে উদার মনোভাব দেখানোর বিষয়ে সকল পুলিশ কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন। কল্যাণ সভার সভাপতি ও পুলিশ সুপার মো. আলমগীর কবীর বলেন, রাঙামাটি পার্বত্য জেলার সুন্দর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির বর্ণনা দেন ও পুলিশ সদস্যদের প্রতি সম্মানিত ডিআইজি মহোদয় যে বার্তা অনুধাবন করে পেশাদারিত্ব এবং মানবিক আচরণের প্রতি আরো যত্নশীল হয়ে দায়িত্ব পালনের আহবান জানান। পুলিশ সুপার বলেন, ডিআইজি মহোদয় যে সকল দিক নির্দেশনা দিয়েছেন তা আমরা অক্ষরে অক্ষরে পালন করবো। সভা শেষে ডিআইজিকে জেলা পুলিশের পক্ষ হতে সম্মানা স্বারক প্রদান করেন পুলিশ সুপার। জেলা পুলিশের সার্বিক পরিস্থিতি আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, পর্যটন শিল্পের বিকাশে জেলা পুলিশের ভূমিকা, জেলা পুলিশের জনবল, কর্মপক্রিয়া, থানা, ফাঁড়ি, চেকপোস্ট এসব বিষয় ডিআইজিকে অবগত করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. ছুফি উল্লাহ। কল্যাণসভা শেষে সুখীনীলগঞ্জ পুৃলিশ লাইনস বিভিন্ন স্থাপনা ঘুরে দেখেন এবং পুলিশ পলওয়েল পার্কসহ মানিকছড়ি আরশি নগর এগো-ট্যুরিজম ফার্ম পরিদর্শন করে পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে রাঙ্গামাটি সকল পুলিশ সদস্যের টীম ওয়ার্কের প্রশংসা করেন।