সংবিধান সংশোধনের পক্ষে রাশিয়াবাসী প্রশস্ত পুতিনের ক্ষমতার পথ

13

সংবিধান সংশোধনের পক্ষেই রায় দিলো রাশিয়া। এর মধ্য দিয়ে ২০৩৬ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার সুযোগ সৃষ্টি হলো প্রেসিডেন্ট ভ্লদিমির পুতিনের। রাশিয়ার বর্তমান সংবিধান অনুযায়ী, এক ব্যক্তি একটানা দুইবারের বেশি প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করতে পারেন না। রুশ প্রেসিডেন্ট সম্প্রতি দেশের সংবিধান সংশোধনের খসড়ায় স্বাক্ষর করেন।
স¤প্রতি পার্লামেন্টে পাস হওয়া সেই প্রস্তাবের ওপর ওপর সাত দিনব্যাপী ভোট গ্রহণ বুধবার শেষ হয়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, ৯৯ শতাংশ ভোট গণনার পর দেখা গেছে সংবিধান সংশোধনের পক্ষে ভোট দিয়েছে ৭৭.৯৩ শতাংশ মানুষ। আর বিপক্ষে পড়েছে ২১.২৬ শতাংশ ভোট। নির্বাচন কমিশনের হিসাব অনুযায়ী, ভোট প্রদানের হার ৬৪.৯৯।
এই খসড়া অনুমোদন পাওয়ায় পুতিন ২০২৪ সালে অনুষ্ঠেয় পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করতে পারবেন। সেই সঙ্গে ২০৩০ সালের নির্বাচনেও তার অংশগ্রহণের পথ সুগম হবে। সে ক্ষেত্রে তার ২০৩৬ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার পথ খুলে যাবে। পুতিন এখন পর্যন্ত প্রকাশ্যে ২০২৪ সালের পরবর্তী নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতার ঘোষণা দেননি। তবে তিনি বলেছেন, এই সুযোগ থাকা জরুরি। এই সপ্তাহে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ‘অন্যথায় আমি জানি দুই বছরের মধ্যে রাষ্ট্রের সব পর্যায়ে স্বাভাবিক কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গিয়ে সবার চোখ সম্ভাব্য উত্তরসূরি খোঁজা শুরু করবে।’ সংবিধান সংশোধনের নতুন প্রস্তাবে ২০৩৬ সাল পর্যন্ত পুতিনের ক্ষমতায় থাকার পথ সুগম হওয়ার পাশাপাশি এতে দেশের শীর্ষ বিচারক ও প্রসিকিউটর মনোনীত করার সুযোগ পাবেন প্রেসিডেন্ট। তবে এই মনোনয়ন পার্লামেন্টের উচ্চ কক্ষে অনুমোদিত হতে হবে। এছাড়া সমকামী বিয়ে নিষিদ্ধ রাখার মতো কিছু রক্ষণশীল বিষয়ও সংবিধানে যুক্ত হবে। অর্থনৈতিক সংস্কারের মধ্যে থাকবে সর্বনিম্ন মজুরি নির্ধারণ করা এবং মুদ্রাস্ফীতির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে রাষ্ট্রীয় পেনশন সুবিধা পুনর্নির্ধারণ করা।