শোকসভায় ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী এএনএমএ মোমিন ছিলেন জ্ঞানপিপাসু ও বিনয়ী

30

মরহুম এএনএমএ মোমিন ছিলেন জ্ঞানপিপাসু এবং মাইজভাণ্ডারীয়া ত্বরিকার একনিষ্ঠ ভক্ত। তার মতো সদালাপি, বিনয়ী এবং কর্মক্ষেত্রে সুদক্ষ মানুষ এ সমাজে দুর্লভ। শনিবার বিকেলে জমিয়তুল ফালাহ্ জাতীয় মসজিদ কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিত শাহানশাহ্ হযরত সৈয়দ জিয়াউল হক মাইজভাণ্ডারী (ক.) ট্রাস্ট এর প্রতিষ্ঠাতা সচিব ও চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রাক্তন পরিচালক (প্রশাসন) মরহুম এএনএমএ মোমিনের স্মরণসভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।
সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রাক্তন পরিচালক (প্রশাসন) মো. গোলাম রসূল। বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ও এসজেডএইচএম ট্রাস্ট এর মিডিয়া এডভাইজার নাজিম উদ্দিন শ্যামল, মাইজভাণ্ডারী হক কমিটি বাংলাদেশ কেন্দ্রিয় পর্ষদ সদস্য শেখ মুজিবুর রহমান, মাইজভাণ্ডারী একাডেমির পরিচালনা পর্ষদ সদস্য ও ট্রাস্ট গবেষণা ও প্রকাশনা পর্ষদ সভাপতি প্রফেসর ড. মুহম্মদ আবদুল মান্নান চৌধুরী, মাইজভাণ্ডারী একাডেমির প্রাক্তন সভাপতি ও চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী, মাইজভাণ্ডারী মরমী গোষ্ঠীর সভাপতি মোহাম্মদ সিরাজুল মোস্তফা, যাকাত তহবিল পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি লায়ন দিদারুল আলম চৌধুরী, তাজকিয়ার সভাপতি আরেফিন রিয়াদ, মরহুম এএনএমএ মোমিনের পরিবারের সদস্যদের পক্ষে প্রথম পুত্র সিরাজুম মুনির সৌরভ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ট্রাস্টের ভারপ্রাপ্ত সচিব প্রফেসর এ ওয়াই এম জাফর। মুখ্য আলোচক হিসাবে মরহুম এ এন এম এ মোমিনের জীবনের উপর লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন ট্রাস্টের ম্যানেজিং ট্রাস্টির তথ্য ও প্রকাশনা বিষয়ক উপদেষ্টা ড. সেলিম জাহাঙ্গীর। ড. সৈয়দ আবদুল ওয়াজেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে কুরআন তেলওয়াত করেন মাওলানা মুহাম্মদ মুজিবুল হক, নাত-ই-রাসূল ও শান-ই-মাইজভাণ্ডারী পরিবেশন করেন শিক্ষার্থী মুহাম্মদ আরমান উদ্দিন। বিজ্ঞপ্তি