শিশুর স্বাস্থ্যরক্ষায় মায়ের দুধ অপরিহার্য

34

মা হওয়ার বাসনা মহিলাদের চিরন্তন। মা হওয়ার পর শিশুর প্রতি মায়ের দায়িত্ব থেকে যায়। মায়ের যত্নের উপর শিশু সুস্বাস্থ্য নির্ভর করে। শিশু ভূমিষ্ট হওয়ার পর মায়ের প্রথম দুধু অর্থাৎ শালদুধ শিশুদের পান করানো একান্ত আবশ্যক। কেননা এই শালদুধে শিমুদের জন্য প্রয়োজনীয় এমন মূল্যবান উপাদান রয়েছে যা শিশুকে বিভিন্ন রোগ থেকে রক্ষা করে থাকে। শালদুধে রয়েছে ভিটামিন ‘এ’ যা শিশুকে অন্ধত্বের হাত থেকে রক্ষা করে।
পবিত্র কোরআনে (সূরা বাকারা-২৩৩) সুনির্দিষ্টভাবে বলা হয়েছে, মায়েরা তাদের সন্তানদের পুরো দু’বছর বুকের দুধ পান করাবে যা সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হন এবং স্তন পানে জরায়ুর ক্যান্সারের আশংকা থাকে না। মায়ের দুধের বিকল্প নেই। উন্নত বিশ্বে টিনের দুধের ব্যবহার নিষিদ্ধ ঘোষিত হলেও আমাদের দেশে এর ব্যবহার বাড়ছে দিন দিন। বেতার/টিভিতে নানা ধরনের মন ভুলানো বিজ্ঞাপন প্রচার করে এর কাটতি বাড়ানো হচ্ছে। এসব বিজ্ঞাপন বিশ্বস্বাস্থ্য খাদ্য নিয়ন্ত্রণ বিধির সুস্পষ্ট লংঘন।
চিকিৎসকদের মতে মায়ের দেহ, হাড়, গোশ্ত, রক্ত থেকে শিশুর জন্ম। প্রকৃতপক্ষে মায়ের স্নেহের অজান্তেই প্রাকৃতিক নিয়মে এসব প্রক্রিয়াজাত ও পরিশোধিত হয়ে শিশুর জন্ম হয়। মায়ের দুধ বিশ্বস্ত ও নিরাপদ এবং শিশু যা সহজেই হজম করতে পারে। স্তনপানে মা ও শিশুর মধ্যে একটি গভীর সম্পর্ক গড়ে ওঠে এবং শিশু নিজেকে অধিক নিরাপদ মনে করে। কাজেই শিশু ও মায়ের সুস্বাস্থ্য রক্ষায় শিশুদের বুকের দুধ সেবন অপরিহার্য।
সমিরণ বড়ুয়া
চট্টগ্রাম