‘শশাঙ্ক মনোহর ভারতবিরোধী’

12

টানা দুই মেয়াদে আইসিসি’র চেয়ারম্যান পদে থাকার পর সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন শশাঙ্ক মনোহর। তার বিদায়কে ভারতীয় ক্রিকেটের জন্য মঙ্গলজনক বলে মনে করেন ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) সাবেক প্রেসিডেন্ট এন শ্রীনিবাসন। শুধু তাই না, স্বদেশী মনোহরকে ‘ভারত-বিরোধী’ আখ্যাও দিলেন তিনি। বুধবার দুই মেয়াদে দুই বছর করে মোট ৪ বছর আইসিসি’র চেয়ারম্যান পদে থাকার পর দায়িত্ব ছাড়ার ঘোষণা দেন শশাঙ্ক মনোহর। আইসিসি’র বোর্ড মিটিং শেষে নতুন কেউ দায়িত্ব নেওয়ার আগ পর্যন্ত ডেপুটি চেয়ারম্যান ইমরান খাজাকে তার শূন্যস্থান পূরণের দায়িত্ব দেওয়া হয়। ২০১৬ সালে আইসিসি’র চেয়ারম্যান পদে অধিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন কারণ ভারতীয় ক্রিকেট কর্তাদের সমালোচনার মুখে পড়েছেন শশাঙ্ক মনোহর। বিশেষ করে ২০১৫ বিশ্বকাপের পর চালু হওয়া ক্রিকেটে ‘তিন মোড়ল’ প্রথার ইতি ঘটিয়ে তিনি ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) বিরাগভাজন হয়েছেন। শ্রীনিবাসন ঠিক সেদিকটাই ইঙ্গিত করেছেন।
শ্রীনিবাসনের মতে, শশাঙ্ক মনোহরের কারণে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট। ফলে তার বিদায়ে খুশিই হয়েছে দেশটির ক্রিকেট সংশ্লিষ্টরা। ২০১৫ সালে সংকটময় মুহূর্তে বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের পদ এবং এই করোনা পরিস্থিতিতে আইসিসি’র পদ ছেড়ে দেওয়ায় মনোহরের ব্যাপক সমালোচনা করেছেন শ্রীনিবাসন।