শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবসের সভায় মেয়র

শত ষড়যন্ত্র আওয়ামী লীগকে রুখতে পারেনি

9

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন বলেন, জনগণের সাথে নিবিড় সম্পৃক্ততা ছিল বলেই শত ষড়যন্ত্র আওয়ামী লীগকে রুখতে পারেনি। জনগণ আমাদের রাজনৈতিক শক্তির একমাত্র উৎস। এ জন্য ঘাত-প্রতিঘাতের মধ্যদিয়েও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিকে একটি জনকল্যাণমুখী রাষ্ট্র উপহার দিতে সক্ষম হয়েছেন।
তিনি গতকাল বিকালে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১১ তম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে দারুল ফজল মার্কেটে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, বিগত ১/১১ এর সময় শেখ হাসিনাকে মাইনাস করার নীলনকশা করা হয়েছিল। এসময় দলকে ভাঙ্গারও ষড়যন্ত্র হয়েছিল। কিন্তু তা সফল হয়নি। জনগণই তখন শেখ হাসিনাকে পাহারা দিয়েছে এবং ২০০৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশভাবে বিজয়ী করে ক্ষমতায় বসিয়েছে। এরপর পরপর তিন দফায় আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থেকে বিশ্বসভায় দেশকে মর্যাদার আসনে বসিয়েছে। এই পথে অনেক সাফল্য ও অর্জন রয়েছে। এই অর্জনগুলোর জনগণের মাঝে পৌঁছে দিতে পারলে আওয়ামী লীগ বারবার ক্ষমতায় আসবে। তিনি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, সকল জাতীয় দিবস এবং দলীয় কর্মসূচীগুলো লাগাতারভাবে ইউনিট, ওয়ার্ড ও থানা পর্যায়ে পালিত হলে দলীয় গণভিত্তি সুদৃঢ় হবে।
সভাপতির বক্তব্যে সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, সংগঠনের পরীক্ষিত ও ত্যাগী নেতাকর্মীরা দল ও দেশের সম্পদ। তবে সকলকে হয়তো এক সাথে মূল্যায়ন করা সম্ভব নয়। তারপরও তাদের সকলের প্রতি আস্থা ও বিশ্বাস অক্ষুন্ন থাকবে। দলীয় ঐক্য রক্ষায় তারাও সহযাত্রী। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সহ-সভাপতি নঈম উদ্দিন আহমদ চৌধুরী, এডভোকেট সুনীল সরকার, ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, সিডিএ চেয়ারম্যান এম. জহিরুল আলম দোভাষ, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য মাহবুবুল হক মিয়া, নির্বাহী সদস্য এম.এ. জাফর, থানা আওয়ামী লীগের হারুনুর রশীদ, ওয়ার্ডের গিয়াস উদ্দিন জুয়েল, স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক এডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহমদ।
উপস্থিত ছিলেন সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য শফিক আদনান, শফিকুল ইসলাম ফারুক, এডভোকেট ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, চন্দন ধর, আহমেদুর রহমান সিদ্দিকী, ইঞ্জিনিয়ার মানস রক্ষিত, আবদুল আহাদ, মোহাম্মদ শহীদুল আলম, নির্বাহী সদস্য আবুল মনসুর, গাজী শফিউল আজিম, নুরুল আবছার মিয়া, সৈয়দ আমিনুল হক, মোহাব্বত আলী খান, বখতেখার উদ্দিন খান, আবদুল লতিফ টিপু, ড. নেছার উদ্দিন আহমেদ, হাজী বেলাল আহমেদ, থানা আওয়ামী লীগের হাজী ছিদ্দিক আলম, কাজী আলতাফ হোসেন, হাজী আবু তাহের, হাজী মো. ইছহাক, মোহাম্মদ ইলিয়াস, রেজাউল করিম কায়সার, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের শামসুল আলম, আবদুল মান্নান, ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, সৈয়দ মোহাম্মদ জাকারিয়া, হোসেন মুরাদ, জয়নাল আবেদীন আজাদ, শেখ সোহরাওয়ার্দী, আবু তৈয়ব ছিদ্দিকী, ফয়েজুন্নাহ বাহাদুর, সেলিম রেজা, মোহাম্মদ মুছা, গোলাম মো: জোবায়ের, নুরুন্নবী চৌধুরী লিটন। সভার শুরুতে প্রধানমন্ত্রীর সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘ জীবন কামনা করে দোয়া মাহফিল ও বিশেষ মুনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। বিজ্ঞপ্তি