চাক্তাই লোকনাথ ধামে ধর্মসম্মিলনে গৌতম বুদ্ধ দাশ

লোকনাথ ব্রহ্মচারী ছিলেন অসাম্প্রদায়িক চেতনার প্রতীক

17

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারী এন্ড এনিমেল সাইন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিভাসু) উপাচার্য প্রফেসর ডা. গৌতম বুদ্ধ দাশ বলেছেন, ব্রহ্মজ্ঞ লোকনাথ ব্রহ্মচারী ছিলেন অসাম্প্রদায়িক চেতনার মূর্ত প্রতীক। জ্ঞান ও করুণার সাক্ষাৎ বিগ্রহ শ্রীশ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী এসেছিলেন মানবের কল্যাণে। তিনি দরিদ্রকে ভালোবেসেছেন, শিখিয়েছেন ধর্মাচরণ। তাঁর উদার মানবীয় ও সর্বজনীন জীবনাদর্শ অনুসরণ করলে শান্তি লাভ করা যায়। সমাজে সর্বস্তরে তাঁর আদর্শ বাস্তবায়ন করা গেলে সত্য ও সুন্দর প্রতিষ্ঠিত হবে। তাই নিজেকে এবং সমাজকে সুন্দরভাবে গড়ে তুলতে তাঁর আদর্শ লালন পালনের আহবান জানান তিনি। গত ৬ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) সন্ধ্যায় নগরীর চাক্তাই লোকনাথ ধামের উদ্যোগে ত্রিকালদর্শী মহাপুরুষ শ্রীশ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী বাবার ২৮৯তম আবির্ভাব উৎসব ও ধামের ৯ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর ধর্মসম্মিলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ধামের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অজয় কৃষ্ণ দাশ মজুমদারের সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন উৎসব উদ্যাপন পরিষদের সাধারন সম্পাদক মান্না বিশ্বাস। কাঞ্চন তালুকদারের সঞ্চালনায় ধর্মসম্মিলনের উদ্বোধন করেন কৈবল্যধামের মোহন্ত মহারাজ শ্রীমৎ অশোক কুমার চট্টোপাধ্যায়। প্রধান বক্তা ছিলেন নাট্যজন ও ধর্মভাষক সুদর্শন চক্রবর্তী। বক্তব্য রাখেন ধামের সিনিয়র সহ-সভাপতি মিলন কান্তি দাশ, সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিত বিশ্বাস, সহ-সভাপতি বাবুল সেন, আশুতোষ সরকার, স্বপন সাহা, দোলন মহাজন প্রমুখ। ১ম দিবসে বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে আশীর্বাদক ছিলেন সাধিকা মা কাননদেবী। পদাবলী কীর্ত্তন পরিবেশন করেন ভজনশিল্পী অনন্যা দত্ত। দু’দিনব্যাপী অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিল- শ্রীমদ্ভগবদ্গীতায় পুষ্পযজ্ঞ, লোকনাথ বাবার পূজা ও ভোগ, সমবেত প্রার্থনা, ভক্তিসঙ্গীতাঞ্জলি ‘খেলিছো এই বিশ্বলয়ে’, বাল্যভোগ, বস্ত্র বিতরণ, সঙ্গীতাঞ্জলি ‘অঞ্জলি লহ মোর’, নৃত্যনাট্য ‘রাই কিশোরী’, প্রতিদিন ভক্তদের মাঝে অন্নপ্রসাদ আস্বাদন। বিজ্ঞপ্তি