লেডিস ক্লাবে বৈশাখী মেলা ও সাজ প্রতিযোগিতা

27

বৈশাখী রঙে রঙিন হয়ে ওঠে চট্টগ্রাম লেডিস ক্লাব মিলনায়তন। ক্লাব সদস্যারাও বাঙালির ঐতিহ্য সাজে বর্ণিল সেজেছেন গত ২৫ এপ্রিল। নববর্ষকে বরণ করে নিতেই এ আয়োজন। তাদের ফুরফুরে মন আর মুখরতায় প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে ক্লাব প্রাঙ্গণ। যে যার মতো করে গান কবিতা কথামালায় বরণ করে নেন নতুন বাংলা বছর ১৪২৫ বঙ্গাব্দকে। এ উপলক্ষে অনুষ্ঠিত হয় কবিতা পাঠ গান, আলোচনাসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ক্লাব সভানেত্রী খালেদা আউয়াল। আলোচনায় অংশ নেন ক্লাব উপদেষ্টা অধ্যক্ষ ড. আনোয়ারা আলম, ক্লাবের সাবেক সভানেত্রী জিনাত আজম, সহ-সভানেত্রী সাবিহা মুসা, জেলা শিল্পকলা একাডেমি চট্টগ্রামের সাবেক পরিচালক ও সাজ প্রতিযোগিতার বিচারক মানসী তালুকদার, ক্লাব সম্পাদিকা বোরহানা কবির, মেলা উপ কমিটির আহŸায়ক কোহিনুর হোসাইন। ক্লাব সদস্যা মর্জিনা আখতারের সঞ্চালনায় গান কবিতা আলোচনার পাশাপাশি অনুষ্ঠিত হয় বৈশাখী সাজ প্রতিযোগিতা। এতে বিচারকদের রায়ে বিজয়ী হন যথাক্রমে আসমা ইসলাম চৌধুরী (১ম), রোকেয়া আকতার বারী (২য়), বোরহানা কবির (৩য়), নাসরিন সারোয়ার মেঘলা (৪র্থ), কাজী রুনু বিলকিস (৫ম), ফেরদৌস আরা বেগম (৬ষ্ঠ)। শান্তনা পুরস্কার পান মর্জিনা আখতার, হাফসা সালেহ ও আশরাফুন্নেসা। অন্যান্যের মধ্যে অংশ নেন ক্লাব সদস্যা রিজিয়া আকবর খন্দকার, হাসমাত আরা বেগম, ইসমত আরা খন্দকার, কাজী তুহিনা আক্তার, রেবেকা নাসরিন, হাজেরা আলম মুন্নী, রওশন আরা ইউসুফ। পরে তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন ক্লাব উপদেষ্টা অধ্যক্ষ ড. আনোয়ারা আলম। তিনি সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, জাতির আবহমান কালের সার্বজনীন ও অসা¤প্রদায়িক সাংস্কৃতিক উৎসবের দিন বৈশাখী নববর্ষ। বাঙালির লোক সংস্কৃতির সাথে বাংলা নববর্ষ ও তপ্রোতভাবে জড়িত। এতে নিহিত রয়েছে বাঙালির আত্মপরিচয়, উত্থান এবং জাতি সত্তা বিকাশের শেকড়। নারীরাও এ উৎসবে যুক্ত হয়েছেন সংসারের সব কাজ সামলিয়েই। আমাদের অনেক ভালোলাগা আছে, আবার অনেক কষ্ট ও দুঃখ। এর মধ্যেও আমাদের হতে হবে মানবিক। সবাইকে শুভবোধে জাগরিত করে ভালোবাসায় উদ্বুদ্ধ করতে হবে দেশ ও জাতিকে। শুরুতেই জাতীয় ও উদ্বোধনী সংগীত এসো হে বৈশাখ পরিবেশিত হয়। কবিতা পাঠে অংশ নেন ডা. খালেদা ফারুক, পারভিন জালাল, কাজী রুনু বিলকিস, পারভিন চৌধুরী, সাকেরা সাদেক, আকতার বানু ফ্যান্সি, সালমা সাদেক, সুলতানা নূরজাহান রোজী ও মর্জিনা আখতার। আধুনিক বাংলা গান ও রবীন্দ্র সংগীত পরিবেশন করেন রুহী মোস্তফা, নাসরীন সারোয়ার মেঘলা, হাসমাত আরা বেগম, ইসমত আরা খন্দকার, রোকেয়া আহমেদ, মো. বদর উদ্দীন। তবলায় সঙ্গত করেন মো. ফারুক হোসেন। নৃত্যে অংশ নেন ছোট্ট বন্ধু ঝুমঝুমি। বৈশাখী মেলায় দেশীয় ে পোশাক, বুটিকস, হস্তশিল্প, দেশীয় ও ঐতিহ্য খাবার, নানাধরনের পিঠা, মৃৎচামড়া দিয়ে তৈরি বিভিন্ন দ্রব্যসামগ্রীর ১৮টি স্টল অংশ নেয়। স্টলদাতারা ছিলেন বোরহানা কবির (ইচ্ছে ঘুড়ি) শামীম কাদের সুরমা (লটারী পিঠা), কোহিনুর হোসাইন (ত্রয়ী) রোকেয়া আকতার বারী, মর্জিনা আখতার, ইসমত আরা (অলংকার), সেরীনা তাহের, কাজী রুনু বিলকিস, মনি, তাবাসসুম জেরিন, আফরোজা বুলবুল (টেস্টিজম), হাজেরা আলম মুন্নী (খাদ্য সামগ্রী), আফরোজা বুলবুল (ফুড জোন), নিপুণ (আঙিনা), জিনাত আরা নিপুণ (ম্যারিস কিচেন), সুলতানা নূরজাহান রোজী (পিঠা সামগ্রী), শামসুন্নাহার লাকী (বুটিকস কাপড়)। বিজ্ঞপ্তি