রেলে নিয়োগ প্রতিটি পদের বিপরীতে হাজারো আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক

77

রেলে ঝুঁকছে সবাই। একটি পদের বিপরীতে আবেদন কয়েক হাজার। বেকার যুবকরা আবেদন করেই যাচ্ছে। অস্বাভাবিক আবেদন পড়ছে প্রতিটি পদে।
জানা যায়, গত এক বছরে ১০ পদে প্রায় এক হাজার লোক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। এর মধ্যে রয়েছে সহকারি স্টেশন মাস্টার, খালাসি, সহকারী কামকম্পিউটার অপারেটর, ট্রেড অ্যাপ্রন্টিস, গুডস সহকারী, ট্রেন নাম্বার ট্রেকার গেট কিপার, নিরাপত্তা বাহিনীর সিপাহী, এমএলএসএস ইত্যাদি।
রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, কয়েকশ গেট কিপার পদে আবেদন জমা পড়েছে প্রায় ৫০ হাজার। সবচেয়ে বেশি জমা পড়েছে সহকারি স্টেশন মাস্টার পদে। এখানে শূন্যপদ রয়েছে ৮৬টি। কিন্তু এসব পদের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে প্রায় ৮০ হাজার। ফলে প্রতিটি পদের বিপরীতে রয়েছে ১০ হাজার আবেদন। অন্যান্য বিভাগেও একই অবস্থা। একটি পদের বিপরীতে ৫০০ থেকে দেড় হাজার আবেদন। খালাসির ১২৬টি পদের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে প্রায় ২৮ হাজার। আরো ৮৬০ জন খালাসি নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে। এ পদে আবেদন পড়েছে প্রায় এক লাখ। এসএসসি ও সমমানের যোগ্যতা সম্পন্ন প্রার্থীরা রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সিপাহী পদের জন্য আবেদন করার সুযোগ রয়েছে। তাদের বেতন স্কেল বেতন ৮ হাজার ২৫০ টাকা।
এক সময় রেলে চাকরির জন্য লোকই পাওয়া যেত না। কিন্তু সেই দিন এখন আর নেই। সবাই রেলের দিকে ঝুঁকে পড়ছে। সাম্প্রতিককালে এ ঝোঁক খুবই বেড়ে গেছে। তরুণ-যুবকদের আগ্রহটা অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গেছে। এভাবে আগ্রহ বাড়ায় বিস্মিত সকলে। এনিয়ে আলোচনা-সমালোচনাও চলছে।
রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, রেলে নিয়োগের জন্য বেশ কিছু কোটা রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে মুক্তিযোদ্ধা কোটা, জেলা কোটা, পোষ্য কোটা, মুক্তিযোদ্ধা কোটা, প্রতিবন্ধী কোটা ইত্যাদি। কোটার বিপরীতেও পড়ছে কয়েক হাজার আবেদন।
অনেকে বলছেন, পদের সংখ্যা বৃদ্ধি, নিয়োগ অনেকটা সহজ হওয়াসহ নানা কারণে লোকজন রেলের দিকে ঝুঁকে পড়ছে।
রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মো. আবদুল হাই বলেন, রেলে প্রতিটি পদে আবেদনকারির সংখ্যা অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে চলেছে। এত বেশি আবেদন যাচাই বাছাই করতেও হিমশিম খেতে হচ্ছে।
জানা যায়, অচিরেই আরো কয়েক হাজার পদে নিয়োগে বিজ্ঞপ্তি দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। শিগগির আবেদনপত্র আহবান করা হতে পারে বলে জানা গেছে।