রীমাতে পদদলন প্রদীপের পরিবার শোকে বিহ্বল

হাটহাজারী প্রতিনিধি

34

সাবেক সিটি মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানিতে গিয়ে বন্দর নগরীর আশকারদীঘির পাড়স্থ রীমা কমিউনিটি সেন্টারে অতিরিক্ত মানুষের ভিড়ে হুড়োহুড়িতে পদদলনে নিহত ঠিকাদার প্রদীপ তালুকদারের সৎকার সম্পন্ন হয়েছে।
গতকাল মঙ্গলবার ভোরে তার গ্রামের বাড়ি হাটহাজারী উপজেলার চিকনদণ্ডী ইউনিয়নের চৌধুরীহাটস্থ বিশ্বেশ্বরী কালিমন্দির সংলগ্ন ধনীরামের বাড়িতে সৎকার শেষে তাদের পারিবারিক শ্মশানে তাকে সমাহিত করা হয়েছে।
প্রতিবেশী রাহুল বণিক জানান, গত সোমবার ভোরে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল থেকে প্রয়োজনীয় কাজ শেষ করে ঠিকাদার প্রদীপ তালুকদারের মরদেহ তার গ্রামে ষ পৃষ্ঠা ১১, কলাম ৬.
ষ শেষ পৃষ্ঠার পর
বাড়িতে পৌঁছলে পরিবারের সদস্য ও এলাকাবাসী তাকে দেখার জন্য ভিড় করে। এ সময় পরিবারের সদস্য ও আত্মীয়-স্বজনের কান্নায় ভারি হয়ে ওঠে পরিবেশ।
এদিকে স্বামীর মৃত্যুতে বাকরুদ্ধ স্ত্রী খো তালুকদার। পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী স্বামীকে হারিয়ে দুই কন্যা সন্তান নিয়ে কীভাবে জীবন কাটাবেন- এ নিয়ে তিনি দিশাহারা। স্বামীর শোকে নাওয়া খাওয়া ছেড়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, স্বামীর মৃত্যু কিছুতেই মানতে পারছি না।
অন্যদিকে প্রিয় বাবাকে হারিয়ে বড় মেয়ে রিপা তালুকদার ও ছোট মেয়ে রিয়া তালুকদারের বিলাপ থামছে না। কিছুক্ষণ পরপর দুই মেয়ের বুকফাটা কান্নায় এলাকার পরিবেশ ভারি হয়ে উঠছে। তাদের প্রশ্ন এ শোক কীভাবে সইব?
ব্যবসায়িক কাজে বান্দরবন থেকে তিনি গত রবিবার বাসায় ফিরেছিলেন বলে জানায় তার কন্যারা। তারা জানান, সোমবার বাবা বাসায় এসে ফ্রিজ থেকে মাংস বের করেছিলেন রান্না করে সবাই মিলে খাব বলে। বিদ্যুৎ বিল দিতে বের হয়ে এক বন্ধুর সাথে রীমা কমিউনিটি সেন্টারে মেজবানে গিয়েছিলেন।
উল্লেখ্য, প্রদীপ তালুকদারের গ্রামের বাড়ি হাটহাজারীর চিকনদণ্ডী ইউনিয়নের চৌধুরীহাট। তিনি নগরীর আগ্রাবাদস্থ যমুনা ভবনের পাশে গোসাইলডাঙ্গা এলাকায় পরিবার-পরিজন নিয়ে ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন বলে জানা গেছে।