রিয়ালকে উড়িয়ে ফাইনালে বার্সা

13

চির প্রতিদ্ব›দ্বীদের বিপক্ষে আবারও জ্বলে উঠলেন লুইস সুয়ারেস। উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকারের জোড়া গোলে রিয়াল মাদ্রিদকে তাদেরই মাঠে হারিয়ে কোপা দেল রের ফাইনালে উঠেছে বার্সেলোনা।
সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে বুধবার রাতে সেমি-ফাইনালের ফিরতি পর্বে ৩-০ গোলে জিতে দুই লেগ মিলিয়ে ৪-১ ব্যবধানে এগিয়ে ফাইনালে ওঠে এরনেস্তো ভালভেরদের দল। এ মাসের শুরুতে প্রথম লেগে কাম্প নউয়ের ম্যাচটি ১-১ ড্র হয়েছিল।
স্প্যানিশ কাপ নামে পরিচিত এই টুর্নামেন্টে প্রথম দল হিসেবে টানা ষষ্ঠবার ফাইনালে উঠল বার্সেলোনা। এর মধ্যে গত চারবারই শিরোপা জিতেছে টুর্নামেন্টের সফলতম ক্লাবটি। দারুণ ক্ষিপ্রতায় আক্রমণে উঠে বারবার অতিথিদের রক্ষণে ভীতি ছড়ান ভিনিসিউস জুনিয়র।
বিরতির আগে দারুণ দুটি সুযোগও পেয়েছিলেন ব্রাজিলিয়ান এই ফরোয়ার্ড। তবে দুবারই উড়িয়ে মেরে দলকে হতাশ করেন তিনি।
প্রথমার্ধে একটি শটও লক্ষ্যে রাখতে না পারা বার্সেলোনা ৫০তম মিনিটে বের্নাবেউকে স্তব্ধ করে দেয়। বাঁ দিক দিয়ে ডি-বক্সে কোনাকুনি শটে দলকে এগিয়ে দেন সুয়ারেস।
৬৯ মিনিটে আত্মঘাতী গোল করে বসেন রাফায়েল ভারানে। ডান দিক থেকে সুয়ারেসকে লক্ষ্য করে গোলমুখে দেম্বেলের বাড়ানো বল ঠেকাতে গিয়ে নিজেদের জালে পাঠান ফরাসি এই ডিফেন্ডার।
আর ৭৩তম মিনিটে সুয়ারেসের সফল স্পট কিকে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ চলে যায় বার্সেলোনার হাতে। ডি-বক্সে উরুগুয়ের এই স্ট্রাইকারকেই কাসেমিরো ফাউল করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি।
এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো ক্লাসিকোয় একের অধিক গোল করলেন সুয়ারেস। গত অক্টোবরে লিগে লিওনেল মেসিকে ছাড়াই রিয়ালকে উড়িয়ে দেওয়ার ম্যাচে দুর্দান্ত এক হ্যাটট্রিক করেছিলেন ৩২ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড। রিয়ালের বিপক্ষে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে তার গোল হলো ১১টি।
টানা পঞ্চমবারের মতো শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে থাকা বার্সেলোনার প্রতিপক্ষ হবে ভালেন্সিয়া ও রিয়াল বেতিসের মধ্যে অন্য সেমি-ফাইনালের বিজয়ী দল। আগামী ২৫ মে হবে ফাইনাল।