৩০ ডিসেম্বর ভোট

রাঙ্গুনিয়ার দুই ইউপি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা

রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধি

56

দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে আগামী ৩০ ডিসেম্বর রাঙ্গুনিয়ার ২টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। গত ২১ নভেম্বর বিকালে উপজেলার স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ও মরিয়মনগর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। এই দুই ইউনিয়নের নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ তারিখ আগামী ৩ ডিসেম্বর, ৫ ডিসেম্বর যাচাই-বাছাই, ৬ থেকে ৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত মনোনয়ন বাছাইয়ের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের, ৯-১১ ডিসেম্বরের মধ্যে আপিল নিষ্পত্তি, ১২ ডিসেম্বর মনোনয়ন প্রত্যাহার এবং ১৩ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। আজ বুধবার থেকে নির্বাচন করার জন্য উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে ফরম সংগ্রহ করা যাবে।
রাঙ্গুনিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুদুর রহমান জানান, আগামী ৩০ ডিসেম্বর স্থগিত হওয়া এই দুই নির্বাচনের সব প্রস্তুতি গ্রহণ করা হচ্ছে। গ্রহণযোগ্য ও নিরপেক্ষ ভোট নিশ্চিতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ পদক্ষেপ নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন তিনি।
সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের মার্চে স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ও মরিয়মনগর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও সীমানা জটিলতার কারণে তা বন্ধ হয়ে যায়। এতে ২০১১ সালের পর থেকে এই ইউনিয়ন দুটির নির্বাচন না হওয়ায় স্থানীয়দের মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছিল। তবে সব জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করায় স্থানীয়দের মাঝে উৎসাহ- আমেজ দেখা দিয়েছে। স্থানীয় সম্ভাব্য প্রার্থীরাও ইতিমধ্যেই বিভিন্নভাবে নিজেদের প্রার্থিতা জানান দিচ্ছেন। বিভিন্ন প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরদের পাশাপাশি এলাকাবাসীও ফেসবুকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে নিজেদের মতামত তুলে ধরছেন। সবমিলে এই দুই এলাকায় পুরোপুরি নির্বাচনের আবহ দেখা যাচ্ছে।
স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে যারা নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করতে চান, তাদের মধ্যে -চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা রহিম উদ্দিন চৌধুরী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ নুরুল্লাহ, স্বেচ্ছাসেবক লীগের উপজেলা শাখার সভাপতি নাসির উদ্দিন রিয়াজ, উপজেলা যুবলীগের সদস্য মোহাম্মদ ইব্রাহিম খলিল।
মরিয়মনগর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান মো. সেলিম, সাবেক চেয়ারম্যান মো. লোকমান হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মোহাম্মদ ইকবাল, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মুজিবুল ইসলাম হিরু, সাধারণ সম্পাদক শওকত হোসেন সেতু , ব্যবসায়ী ওসমান গনি, সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মুজিবুল ইসলাম। রাঙ্গুনিয়া উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি ও স্থানীয় মরিয়মনগরের বাসিন্দা মো. পারভেজ হোসেন বলেন, দীর্ঘদিন পর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ায় এলাকার মানুষ তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান হাছান মাহমুদকে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানিয়েছে।
উল্লেখ্য ২০১৬ সালের ২৮মে চতুর্থ ধাপে রাঙ্গুনিয়ার ১২ ইউপির সাথে একযোগে এই দুই ইউনিয়নের নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু উচ্চ আদালতের একটি মামলায় ইউনিয়ন দুটির নির্বাচন স্থগিত করা হয়। একটি পূর্ণাঙ্গ ইউনিয়ন পরিষদ হতে আয়তন ও লোকসংখ্যা যতটুকু হওয়ার দরকার মরিয়ম নগর ইউনিয়নে তা নেই উল্লেখ করে উচ্চ আদালতে এই মামলাটি দায়ের করা হয়। মামলায় পাশ্ববর্তী স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়ন ও চন্দ্রঘোনা ইউনিয়ন থেকে আয়তন যোগ করার কথা বলা হয়। এতে মরিয়মনগরের সাথে আটকে যায় স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়নের নির্বাচন।
তবে সম্প্রতি উচ্চ আদালত, সীমানা জটিলতার মামলাটি খারিজ করে দিয়ে নির্বাচনের আর কোনো বাধা নেই জানিয়ে রায় দিয়েছেন। এতে নির্বাচন হতে আর কোন বাধা না থাকায়, তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচনের কার্যক্রম শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন।