রাঙামাটি ও বান্দরবানে এম এন লারমার মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

রাঙামাটি ও বান্দরবান প্রতিনিধি

34

রাঙামাটি : রাঙামাটিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির প্রতিষ্ঠাতা ও জুম্ম জাতীয়তাবাদের প্রবক্তা সাবেক সংসদ সদস্য মানবেন্দ্র নারায়ণ (এমএন) লারমার ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে শুক্রবার জেলা সদরসহ বিভিন্ন স্থানে দিনব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসাবে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি এবং তার অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে সকালে প্রভাতফেরি, এমএন লারমার প্রতিকৃতিতে পুস্পমাল্য অর্পণ, শোক র‌্যালি, স্মরণসভা এবং সন্ধ্যায় প্রদীপ প্রজ্ঝালন ও ফানুস উড়ানো হয়েছে।
সকালে প্রভাতফেরি ও শোক র‌্যালি শেষে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে স্মরণসভার আয়োজন করা হয়েছে। জনসংহতি সমিতির জেলা শাখার সভাপতি সুবর্ণ চাকমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্মরণসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, জনসংহতি সমিতির সভাপতি ও পার্বত্য আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যান জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা ওরফে সন্তু লারমা। এ ছাড়া সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গৌতম দেওয়ান, আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য গৌতম চাকমা, আদিবাসী ফোরাম পার্বত্য অঞ্চল সভাপতি প্রকৃতি রঞ্জন চাকমা প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
প্রয়াত এমএন লারমা পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য ও বাংলাদেশের প্রথম জাতীয় সংসদে পার্বত্য চট্টগ্রাম-১ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য ছিলেন। তিনি ১৯৮৩ সালের ১০ নভেম্বর আট সহযোগীসহ দলের বিভেদপন্থী প্রীতি গ্রæপের হাতে নির্মমভাবে নিহত হন।
বান্দরবান : বান্দরবানে আঞ্চলিক রাজনৈতিক সংগঠন জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মানবেন্দ্র নারায়ণ লারমার ৩৪তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে শুক্রবার সকালে কালো ব্যাজ ধারণ এবং শোক র‌্যালি কর্মসূচি পালন করেছে জেএসএস। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে মধ্যমপাড়াস্থ দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষে হয়। পরে এক শোক সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য এবং জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক কে.এস মং মারমা এতে প্রধান অতিথি ছিলেন। দিনটি স্মরণে সন্ধ্যায় ফানুস উত্তোলন এবং মোমবাতি প্রজ্ঝালন করা হয়।