রাঙামাটিতে ৪০ মণ্ডপে দুর্গোৎসব

রাঙামাটি প্রতিনিধি

26

হিন্দু স¤প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে শহরসহ রাঙামাটি জেলাব্যাপী বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ। এবার শহরসহ জেলায় মোট ৪০ পূজামÐপে আয়োজন করা হয়েছে শারদীয় দুর্গোৎসব। সোমবার সকালে দেবী দুর্গার ষষ্ঠাদি কল্পারম্ভ, বিকালে পূজা-অর্চনা ও সন্ধ্যায় দেবীর বোধন, আমন্ত্রণ, অধিবাস পালনসহ ধর্মীয় নানা আচার অনুষ্ঠানে সবকটি মÐপে পালিত হয়েছে বেলষষ্ঠী।
শহরের কাঠালতলী কালী মন্দির, গর্জনতলী কালী মন্দির, তবলছড়ি কালীবাড়ি মন্দিরসহ বিভিন্ন পূজামÐপে অর্চনার পাশাপাশি আয়োজন করা হয়েছে ভক্তিমূলক সঙ্গীতানুষ্ঠান, অঞ্জলি, প্রসাদ বিতরণ, দুস্থদের মাঝে বস্ত্র বিতরণ, রক্তদানসহ নানা কর্মসূচি। আজ মঙলবার অনুষ্ঠিত হবে সপ্তমী পূজা।
শাস্ত্র মতে, এবার অশুভ শক্তি বিনাশের জন্য দেবী দুর্গার মর্ত্যে আগমণ ঘোড়ায় চড়ে। যাবেন দোলায় চড়ে।
এদিকে প্রতিটি মল্ডপে জোরদার করা হয়েছে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা। জেলা ও পুলিশ প্রশাসন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানায়, আইনশৃংখলা রক্ষা ও পর্যাপ্ত নিরাপত্তার জন্য মন্ডপে মন্ডপে পুলিশের পাশাপাশি অতিরিক্ত আনসার ও ভিডিপি সদস্য মোতায়েন রাখা হয়েছে।
জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অমর কুমার দে জানান, শহরসহ রাঙামাটি জেলার প্রতিটি মন্ডপে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে শারদীয় দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রতিটি মন্ডপে সব ধর্ম, বর্ণ, সম্প্রদায়ের মানুষ শৃংখলাপূর্ণ ও উন্মুক্ত পরিবেশে যাতায়াত করতে পারবেন। এবার রাঙামাটি সদরে ১৪টি, কাপ্তাইয়ে ৭টি, রাজস্থলীতে ৩টি, কাউখালীতে ৪টি, নানিয়ারচরে ২টি, জুরাছড়িতে ১টি, বিলাইছড়িতে ১টি, বাঘাইছড়িতে ৪টি, লংগদুতে ২টি এবং বরকলে ২টি মন্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব উদযাপিত হচ্ছে।
কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জাহেদুল হক জানান,শারদীয় দুর্গোৎসবকে ঘিরে দুই স্তরের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। পুলিশের একটি দল পূজামন্ডপের ভেতরে দায়িত্ব পালন করছেন। অপর একটি দল মন্ডপের বাহিরে দায়িত্ব পালন করছেন।
এছাড়াও নিরবচ্ছিন্ন নিরাপত্তার স্বার্থে ডিবি ও ডিএসবি সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন। শহরের মধ্যে ১৪টি পুজামন্ডপে পুলিশ সার্বক্ষণিক নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত আছে।