রাকেশের গলায় ক্যান্সার

16

সোনালী বেন্দ্রে, ইরফান খানের পর আবারও ‘বি টাউনে’ ক্যান্সারের ছোবল; এবার বলিউডের পরিচালক রাকেশ রোশানের কর্কট রোগে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেল। আর খবরটি জানিয়েছেন খোদ রাকেশের ছেলে জনপ্রিয় অভিনেতা হৃতিক রোশান। এক সময়ের অভিনেতা রাকেশের গলায় কয়েক সপ্তাহ আগে ‘স্ক্যামাস সেল কার্সিনোমা’ নামের ক্যান্সারে অস্তিত্ব শনাক্ত হয়েছে। রোগটি প্রাথমিক পর্যায়েই ধরা পড়েছে। মঙ্গলবারই তার গলায় অস্ত্রোপচার হওয়ার কথা। মঙ্গলবার বাবার সঙ্গে জিমে তোলা একটি ছবি নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে দিয়ে ‘কৃশ’ খ্যাত হৃতিক লিখেছেন, “সকালে বাবাকে জিজ্ঞেস করেই এই ছবি তোলা। জানতাম অস্ত্রোপচারের দিনেও তিনি জিম মিস করবেন না। সম্ভবত আমার দেখা সবচেয়ে শক্তমনের মানুষ তিনি। কয়েক সপ্তাহ আগে তার গলায় স্ক্যামাস সেল কারসিনোমা ধরা পড়েছে, কিন্তু এর বিরুদ্ধে লড়াই শুরুর আগে আজও তিনি পুরো প্রাণবন্ত। তার মত একজন যোদ্ধা পাওয়ায় আমাদের পরিবার সৌভাগ্যবান।”
১৯৭০ সালে ‘ঘর ঘর কি কাহানি’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মধ্যে দিয়ে বলিউড ক্যারিয়ার শুরু করেন রাকেশ রোশান। অভিনয় করেছেন ‘বুনিয়াদ’, ‘খুবসুরাত’, ‘কামচোর’, ‘ভগবান দাদা’ চলচ্চিত্রে। ১৯৮৭ সালে ‘খুদগার্জ’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে হিন্দি সিনেমার জগতে পরিচালক হিসেবে নাম লেখান রাকেশ। এরপর নির্মাণ করেন ‘খুন ভারি মাঙ’, ‘কি আংঙ্কল’, ‘কয়লা’ এবং ‘করণ অর্জুন’ এর মত হিট সিনেমা। ২০০০ সালে ‘কাহো না পেয়ার হ্যায়’ চলচ্চিত্রে ছেলে হৃতিক রোশানকে অভিনেতা হিসেবে হাজির করেন রাকেশ। এরপর পরিচালক বাবা আর অভিনেতা ছেলের জুটিতে নির্মিত হয়েছে ‘কই মিল গায়া’ এবং সুপার হিরো ‘কৃশ’ এর সিকুয়াল। রাকেশের নির্মিত সবশেষ চলচ্চিত্র ‘কাবিল’ এও নাম ভূমিকায় ছিলেন হৃতিক। তার পরবর্তী সিনেমা ছেলে হৃত্বিককে নিয়ে ‘কৃশ ফোর’।