রাইফা হত্যা কালো ব্যাজ পড়ে প্রতিবাদ জানালেন সাংবাদিকরা

27

নগরের বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসকদের অবহেলা ও ভুল চিকিৎসায় শিশু রাফিদা খান রাইফার মৃত্যুতে জড়িতদের বিচারের দাবিতে কালো ব্যাজ ধারণ করে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছেন চট্টগ্রামের সাংবাদিকরা। গতকাল বুধবার চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের পিএইচপি ভিআইপি লাউঞ্জে কালো ব্যাজ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সভাপতি নাজিমুদ্দিন শ্যামল। পরে চট্টগ্রামের সকল গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানে কর্মকর্তারা কালো ব্যাজ ধারণ করে রাইফা হত্যার বিচারের দাবিতে এ প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করা হয়।-খবর বাংলানিউজের
এদিকে, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে) ঘোষিত আন্দোলন কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করে কালোব্যাজ ধারণ করেন বিভিন্ন দেশ থেকে আসা বেশ কয়েকজন সাংবাদিক। চট্টগ্রামের একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত একটি আন্তর্জাতিক কর্মশালায় অংশ নিতে তারা চট্টগ্রামে এসেছেন।
ব্রিটিশ ডেইলি গার্ডিয়ানের সিনিয়র সাংবাদিক ক্রিস স্ট্যাফেন কালো ব্যাজ ধারণ করেন। এমন ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেন ব্রিটিশসহ বিভিন্ন দেশ থেকে আসা সাংবাদিকরা। ব্রিটিশ ডেইলি গার্ডিয়ানের সিনিয়র সাংবাদিক ক্রিস স্ট্যাফেনসহ বিদেশি সাংবাদিকরা কালো ব্যাজ ধারণ করেন। কালো ব্যাজ কর্মসূচির উদ্বোধনের সময় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে অন্যদের মধ্যে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম মহাসচিব তপন চক্রবর্তী, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের আপ্যায়ন সম্পাদক রোকসারুল ইসলাম, চট্টগ্রাম হাউজিং সোসাইটির পরিচালক মহসিন কাজী, সিইউজের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আহমেদ কুতুবসহ চট্টগ্রামের গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনের পর প্রত্যেক গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানে কর্মরতরা নিজেদের শরীরে কালো ব্যাজ ধারণ করেন।
কালো ব্যাজ ধারণ কর্মসূচি প্রসঙ্গে সাংবাদিক নেতারা বলেন, রাইফা হত্যার বিচারের দাবিতে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন অভিযুক্ত চিকিৎসকদের বিচার, অবৈধ অনুমোদনহীন ম্যাক্স হাসপাতাল বন্ধ ও সাংবাদিকদের সঙ্গে অশোভন আচরণকারী ডা. ফয়সল ইকবালের সনদ বাতিল ও জাতির কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার দাবিতে রাজপথে সোচ্চার রয়েছে। এই তিন দাবি বাস্তবায়ন করেই চট্টগ্রামের সাংবাদিক-জনতা ঘরে ফিরে যাবে। রাইফার মৃত্যুকে নিয়ে কোন ধরনের ষড়যন্ত্র হলে তা কঠোরভাবে প্রতিহত করবে সাংবাদিক-জনতা। আমরা রাইফার মৃত্যুর সাথে জড়িতদের কঠোর শাস্তি কামনা করছে। দাবি আদায় না হলে কঠোর আন্দোলনে যাবে চট্টগ্রামের সাংবাদিক-জনতা।