যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার বিষয়ে মুখ খুললেন শাকিব খান

72

সেলিব্রিটিদের নিয়ে গুঞ্জন রটা নতুন কোনো ঘটনা নয়। স¤প্রতি মিডিয়াপাড়ায় গুঞ্জন রটে, শিগগিরই ঢালিউডের শীর্ষ অভিনেতা শাকিব খান আমেরিকা প্রবাসী হতে চলেছেন। তবে এ বিষয়টা নিতান্তই গুজব বলেই উড়িয়ে দিয়েছেন ঢালিউডের ‘কিং খান’। শোনা যাচ্ছিল, গত বছরেই নাকি যুক্তরাষ্ট্রের ইবি ক্যাটাগরির ভিসার জন্য আবেদন করেছিলেন ঢালিউডের ‘কিং খান’। একজন দক্ষ ও স্বীকৃত অভিনয়শিল্পী হিসেবেই নাকি শাকিব খান এই ভিসার জন্য আবেদন করেন। আর তা গৃহীত হয়েছে গেল ডিসেম্বর মাসেই। এফডিসি পাড়ায় এমন গুঞ্জনই চলছিল। এ ব্যাপারটির সত্যতা যাচাইয়ের জন্য রবিবার দুপুরে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও শাকিব খানকে ফোনে পাওয়া যায়নি। এরপর সোমবার তিনি নিজেই ব্যাপারটা খোলসা করেন। এসব গুঞ্জনকে গুজব বলে উড়িয়ে দিয়ে জনপ্রিয় অভিনেতা শাকিব খান বলেন, ওই যে একটা কথা আছে না ‘যার বিয়ে তার খবর নেই, পাড়া পড়শীর ঘুম নেই, এই আর কি।’ অর্থাৎ খোদ ‘কিং খান’কে ঘিরে এরকম গুঞ্জন নিয়ে শাকিব-ভক্তদের আপাতত উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনো কারণ নেই। ইতোপূর্বে বাংলাদেশের আরও অনেক অভিনয়শিল্পীই বিদেশে স্থায়ীভাবে পাড়ি জমিয়েছেন। এদের মধ্যে রয়েছেন, রিচি সোলায়মান, মোনালিসা, টনি ও প্রিয়া ডায়েস, সোনিয়া, দিলরুবা রুহি, তমালিকা কর্মকার, শ্রাবন্তী, শামীম শাহেদসহ আরও অনেকে। তুমুল জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা শাবনূরও অনেক বছর ধরে অস্ট্রেলিয়ায় থাকছেন। এবার এই তালিকায় ‘কিং খান’ যুক্ত হচ্ছেন কিনা তা নিয়েই চলছিল জল্পনা-কল্পনা। তবে শাকিব জানালেন, আপাতত এসব জল্পনা বন্ধ রাখাটাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে। ঢালিউডে শীর্ষ তারকা শাকিব স¤প্রতি তার প্রযোজিত ও অভিনীত ‘বীর’ সিনেমার কাজ শেষ করেছেন। এখন নতুন প্রযোজনার কাজ নিয়ে ব্যস্ত আছেন। শিগগিরই এ বিষয়ে ঘোষণা দেবেন।