রাশিয়ার বদলা

যুক্তরাজ্যের ২৩ কুটনীতিককে বহিষ্কার

30

যুক্তরাজ্যে রাশিয়ার সাবেক গুপ্তচর ও তার কন্যার ওপর নার্ভ এজেন্ট হামলার ঘটনা নিয়ে সৃষ্ট উত্তেজনার মধ্যে যুক্তরাজ্য থেকে রাশিয়ার কূটনীতিকদের বহিষ্কারের পাল্টা ব্যবস্থা নিয়েছে মস্কো। রাশিয়া জানিয়েছে, তারা ব্রিটিশ কাউন্সিলের কার্যক্রম এবং সেন্ট পিটার্সবুর্গে ব্রিটিশ কন্স্যুলেট-জেনারেলের দপ্তরও বন্ধ করে দিবে।
রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ওই ২৩ ব্রিটিশ কূটনীতিককে দেশ ছাড়ার জন্য এক সপ্তাহ সময় দিয়েছে তারা। দক্ষিণ ইংল্যান্ডের সলসবারি শহরে রাশিয়ার পক্ষত্যাগী গুপ্তচর সের্গেই স্ক্রিপাল (৬৬) ও তার কন্যা ইউলিয়া স্ক্রিপালের (৩৩) ওপর নার্ভ এজেন্ট হামলার ঘটনায় যুক্তরাজ্য ও রাশিয়ার মধ্যে তীব্র উত্তেজনা চলছে।
এই হামলার পেছনে রাশিয়ার ভূমিকা আছে বলে ধারণা যুক্তরাজ্যের। এ ঘটনার জেরে বৃহস্পতিবার রাশিয়ার ২৩ কূটনীতিককে বহিষ্কার করে লন্ডন। মস্কোর পাল্টা ব্যবস্থা নেওয়াটাও প্রত্যাশিত ছিল। কিন্তু মস্কোর পাল্টা ব্যবস্থা ধারণার চেয়েও কঠোর হয়েছে বলে মন্তব্য রয়টার্সের। ‘ব্রিটেনের উস্কানিমূলক পদক্ষেপ ও ভিত্তিহীন অভিযোগের’ প্রতিক্রিয়ায় এসব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
এ ঘটনা নিয়ে আর কোনো ‘অবন্ধুসুলভ পদক্ষেপ’ নিলে রাশিয়া পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য তৈরি আছে বলে লন্ডনকে সতর্ক করেছে তারা।
শনিবার সকালে ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত লরি ব্রিস্টোকে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ডেকে পাঠিয়ে মস্কোর সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হয়। পরে ব্রিস্টো সাংবাদিকদের জানান, বিষাক্ত নার্ভ এজেন্ট সলসবারিতে কীভাবে গেল মস্কো তা ব্যাখ্যা করতে ব্যর্থ হওয়ার পরই কেবল রাশিয়ার কূটনীতিকদের বহিষ্কার করেছে ব্রিটেন। তিনি বলেন, “আমাদের রক্ষা করতে যা দরকার সবসময় তাই করি আমরা।” ব্রিটিশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তারা রাশিয়ার প্রতিক্রিয়ার অপেক্ষায় ছিল এবং জাতীয় নিরাপত্তা কাউন্সিল আসছে সপ্তাহে বৈঠক করে পরবর্তী পদক্ষেপের বিষয়টি বিবেচনা করবে।