যন্ত্রণাবীজ

লাভলী বাশার

12

পূর্ণ চাঁদের তলে নিস্তরঙ্গ ঝর্নাজলে
উদোম স্নানে মগ্ন আমি-তুমি
তোমার উষ্ণ পালকে মুখ রেখে
উপলব্ধি করি অবিচ্ছিন্ন সত্তা।

হৃদয় শরীরে ছড়িয়ে পড়ে
উত্তাল তরঙ্গের অলীক সুর
সেই কঠিন সূরের মূর্ছনায়
খুলে যায় বক্ষবন্ধনী
ছুটে যায় অন্তর্বাসের বাঁধন।

নক্ষত্রের বন্যহাসি আর ঢেউয়ের
বর্ণিল আঘাতে-
দুলতে দুলতে হারিয়ে যাই বালিতে
গলিত জোছনার আনন্দে
মেতে উঠি চোরা উল্লাসে।

কখন যেন মায়াবী নক্ষত্র এসে
হাসির ছলে হৃদয় গর্ভে রোপণ করে দিল
সুন্দর বিষন্ন যন্ত্রণাবীজ।

কঁকিয়ে উঠি লাবণ্যময় ব্যথায়
হারিয়ে যাই মহুয়ার মদিরতায়
মরফিনের উপাত্যকায়।