শিরোপা জয়ের পথে ম্যানসিটির হোঁচট

ম্যানইউ’র ড্র আর্সেনালের জয়

24

শিরোপা জয়ের পথে বড় ধাক্কা খেলো ম্যানচেস্টার সিটি। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে নিউক্যাসল ইউনাইটেডের কাছে তারা অবিশ্বাস্যভাবে হেরেছে ২-১ গোলে। এর আগে ২০০৫ সালের সেপ্টেম্বরে সবশেষ ম্যানসিটিকে হারিয়েছিলো নিউক্যাসল!
অথচ ম্যাচের শুরুতে সিটির ক্ষীপ্র গতিতে ভিন্ন কিছুর আমেজ মিলেছিলো। ২৪ সেকেন্ডের মাথাতেই একটি গোল করে এগিয়ে যায় সিটি। সের্হিয়ো আগুয়েরোর গোলে জয়ের পথ তৈরি হয়ে যায় শুরুতেই। যেই জয়ের ফলে শীর্ষে থাকা লিভারপুলের সঙ্গে এক পয়েন্ট ব্যবধান কমানোর সুযোগও তৈরি হয়েছিলো। কিন্তু রক্ষণের দুটি ভুলে প্রথমার্ধের পর দুটি গোল করে তাদের জালে পাল্টা হানা দেয় নিউক্যাসল। অবনমন অঞ্চলের উপরে থাকা নিউক্যাসল ৬৬ মিনিটে একটি গোল শোধ দেয়। ৮০ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করেন ম্যাট রিচি। প্রতিপক্ষের এই গোলেই বছরের দারুণ শুরুর ইতি ঘটলো বর্তমান চ্যাম্পিয়ন সিটির। এদিন জিতলে বছরের টানা অষ্টম জয়ের দেখা পেতো গার্দিওলার দল।
সিটির হারের দিনে অল্পের জন্য হার এড়িয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ভারপ্রাপ্ত কোচ সুলশারের অধীনে দারুণ শুরুর পর বার্নলির কাছে হারতে বসেছিলো। কিন্তু শেষ মুহূর্তের নাটকীয় দুই গোলে ড্র নিয়ে মাঠ ছেড়েছে ম্যানইউ। বার্নলি শুরুতে ৫১ মিনিটে বার্নসের গোলে এগিয়ে যায়। ৮১ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুন করেন উড।
তারা দুই গোলে এগিয়ে জয়ের মঞ্চ প্রস্তুত করে রাখলেও আচমকা ম্যাচের গতিপ্রকৃতি পাল্টায় ম্যানইউ। শেষ দিকে ৮৭ মিনিটে পেনাল্টি থেকে পগবার গোলের পর ইনজুরি সময়ে লিন্ডেলফের গোলে ২-২ সমতায় মাঠ ছাড়ে সুলশারের শিষ্যরা। অথচ নওয়েজীয় এই কোচ দায়িত্ব নেওয়ার পর আগের আট ম্যাচেই জয় পেয়েছে রেড ডেভিলরা।
এদিকে এমিরেটস স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার রাতে ২-১ গোলে জেতে আর্সেনাল। লিগে এই নিয়ে টানা দ্বিতীয় ও শেষ ছয় ম্যাচে তৃতীয় জয় পেল দলটি। বাকি তিন ম্যাচের দুটিতে হেরেছে তারা।
ঘরের মাঠে ম্যাচের প্রথমার্ধে আর্সেনালের পারফরম্যান্স ছিল ভীষণ হতাশাজনক। অধিকাংশ সময় বল দখলে রেখেও গোলের কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি তারা।
কিন্তু ৬৬তম মিনিটে স্পট কিকে আর্সেনালকে এগিয়ে দেন আউবামেয়াং। বসনিয়ার ডিফেন্ডার সেয়াদ কোলাশিনাচ ডি-বক্সে ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টিটি পায় স্বাগতিকরা। শুরু থেকে বিবর্ণ থাকা লাকাজেত ৮৩তম মিনিটে একক নৈপুণ্যে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। যোগ করা সময়ের তৃতীয় মিনিটে ব্যবধান কমিয়ে নাটকীয়তার আভাস দিয়েছিলেন ইংলিশ ফরোয়ার্ড ন্যাথানিয়েল-মেন্ডেজ।
শেষ পর্যন্ত অবশ্য আর্সেনালের জয়ের পথে বাধা হতে পারেনি দলটি।
ম্যাচ শেষে শীর্ষে থাকা লিভারপুলের পয়েন্ট ৬০। ম্যানচেস্টার সিটি ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় , ৫১ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে টটেনহ্যাম হটস্পার। এক ম্যাচ কম খেলা চেলসি সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে এগিয়ে চতুর্থ, ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে আর্সেনাল এবং ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ৪৫ পয়েন্ট নিয়ে আছে ষষ্ঠ স্থানে।