মোপলেসের উদ্যোগে উত্তম কুমার ও সুচিত্রা সেনের স্মরণানুষ্ঠান

36

মোরা পত্র লেখক সমাজ (মোপলেস) চট্টগ্রাম এর উদ্যোগে গত ২৬ জানুয়ারি কদম মোবারক এম.ওয়াই উচ্চ বালক-বালিকা বিদ্যালয়ে মহানায়ক উত্তম কুমার-মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের স্মরণানুষ্ঠান উপলক্ষে শিশু-কিশোর চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা ও সন্ধ্যায় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সার্বিক তত্ত¡াবধানে ছিলেন সজল দাশ। অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন- শিল্পী রীতা চৌধুরী ও তরুণ প্রজন্মের তারকা শিল্পী রিমি সিন্হা। তবলায় ছিলেন- দেবেন্দ্র দাশ দেবু। সন্ধ্যায় পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভায় সিনিয়র আওয়ামী লীগ নেতা দীপংকর চৌধুরী কাজলের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সম্পাদক ববিতা বড়–য়া। উদ্বোধক ছিলেন চট্টগ্রাম আইন কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক জিএস সুমন দেবনাথ। প্রধান আলোচক ছিলেন এড. টিপু শীল জয়দেব। বিশেষ আলোচক ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা রাখাল চন্দ্র ঘোষ ও অধ্যক্ষ রতন দাশগুপ্ত। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মোপলেস সভাপতি সজল দাশ। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন শিল্পী অচিন্ত্য কুমার দাশ ও দিলীপ সেনগুপ্ত। এতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওয়ায়েস কাদের, মোস্তফা ইব্রাহীম, অসীক দত্ত, এম.আই হোসেন সাহিদ, সংগঠক সুজিত দাশ অপু, সংগঠক সুজিত চৌধুরী মিন্টু, শিল্পী কাকলী দাশগুপ্তা, রতন ভট্টাচার্য, নন্দন পুরোহিত, রতœা রাণী সিংহা, মো. আকতার, নিপুল কান্তি ভৌমিক, রাজীব মহাজন, শান্তা ভট্টাচার্য, সরোজ ভট্টাচার্য, তন্দ্রা বিশ্বাস, পপি ভৌমিক, মলি বিশ্বাস, টুম্পা দাশ, রূপনা মহাজন, নিপা বনিক, বরুণ বনিক, সুজিত দাশ, আমির হামজা প্রমুখ। প্রধান অতিথি ববিতা বড়–য়া বলেন, উপমহাদেশের বাংলা চলচ্চিত্রের মহানায়ক উত্তম কুমার ও মহানায়িকা সুচিত্রা সেন তাঁদের অভিনয় গুণে বাংলা চলচ্চিত্রকে যেভাবে সমৃদ্ধ করে গেছেন তা যুগ থেকে যুগে, শতাব্দী থেকে শতাব্দী পর্যন্ত চলচ্চিত্রপ্রেমীরা শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে। অবশ্য তখনকার দিনে সাদা-কালো ছবি নির্মিত হতো। আজকের বিশাল বাজেটে ও ডিজিটাল পদ্ধতিতে নয়। যতদিন বাংলা চলচ্চিত্র থাকবে ততদিন উত্তম-সুচিত্রা থাকবে। তিনি তরুণ প্রজন্মের উদ্দেশ্যে বলেন, সপরিবারে উত্তম-সুচিত্রা অভিনীত ছায়াছবিগুলো দেখার জন্য, এতে তারাই উপকৃত হবে। উদ্বোধক সুমন দেবনাথ বলেন, মোপলেস প্রতিষ্ঠাকাল থেকে তাদের সৃজনশীল কাজগুলো করে যাচ্ছে। ইতিপূর্বে তারা বরেণ্য শিল্পী, মহিয়সী রমনী ও রাজনৈতিক ব্যক্তিদের নিয়ে স্মরণানুষ্ঠানের আয়োজন করেছে এবং পাশাপাশি শিশু-কিশোরদের নিয়ে ধারাবাহিকভাবে চিত্রাংকন ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে আসছে। তাদের আয়োজনগুলো ছোট আকারের হলেও মানসম্মত। সভার সভাপতি দীপংকর চৌধুরী কাজল বলেন, উত্তম-সুচিত্রা অভিনীত বাংলা ছায়াছবিগুলো আজও খুব জনপ্রিয়। তা বাংলা চলচ্চিত্রের অমূল্য সম্পদ। সে ছবিগুলো বিশেষ প্রদর্শনীর মাধ্যমে দেশীয় হলগুলোতে প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা হলে এতে তরুণ প্রজন্ম অনুপ্রাণিত হবে। তিনি অনুষ্ঠানে উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানান। সভায় বাংলা চলচ্চিত্রের আরেক জনপ্রিয় অভিনেত্রী সুপ্রিয়া দেবীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ এবং তার শোকাহত পরিবার-পরিজনের প্রতি সমবেদনা ও সৃষ্টিকর্তার কাছে তার আত্মার শান্তি কামনা করা হয়। বিজ্ঞপ্তি