কর্ণফুলী রেজিমেন্টের অনুষ্ঠানে আবদুচ ছালাম

মেধা-মননের সমন্বয়ে দেশের কল্যাণে কাজ করতে হবে

20

মেধা ও মননের সমন্বয়ে দেশের কল্যাণে ক্যাডেটদের কাজ করার আহবান জানিয়েছেন চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম। মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর খুলশীতে কর্ণফুলি রেজিমেন্টের মেধাবী ক্যাডেটদের বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। সিডিএ চেয়ারম্যান বলেন, ‘প্রত্যেক শিক্ষার্থীদের মাঝে সুপ্ত প্রতিভা আছে। সার্টিফিকেট নির্ভর শিক্ষালাভ জীবনের উদ্দ্যেশ্য নয়। প্রকৃত শিক্ষা অর্জনের মাধ্যমে দেশ ও দশের উন্নয়নই জীবনের লক্ষ্য হওয়া উচিত। শুধুমাত্র ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার হওয়অর প্রতিযোগিতা করলে হবে না সাথে সাথে সুন্দর হৃদয় সম্পন্ন ভালো মানুষ হতে হবে। তাহলে শিক্ষার প্রকৃত স্বাদ পাওয়া যাবে। আজকের শিক্ষার্থীরা আগামী দিনের ভবিষ্যত। তারা দেশকে নেতৃত্ব দিবে। বিশ^ প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে বিশ^মানের শিক্ষায় শিক্ষিত হবে। শেখ হাসিনার সরকার শিক্ষাবান্ধব সরকার। শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়ন করতে তিনি ও তার সরকার ব্যাপক কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন। তাই বিজ্ঞনমষ্ক প্রযুক্তিনির্ভর অসাম্প্রদায়িক ঐক্যবদ্ধ জাতি গঠনে সরকার কাজ করছেন।’রেজিমেন্ট কমান্ডার কর্নেল মো.শফিকুর রহমানের সভাপতিত্বে এবং ক্যাপ্টেন কাজী নাজমুল হকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন মেজর জহির উদ্দিন বাবর, মেজর জসীম উদ্দিন, মেজর মঞ্জুরে খোদা।
ব্যর্থতা শব্দটি জীবন থেকে মুছে ফেলার আহŸান জানিয়ে তিনি আবদুচ ছালাম বলেন, ‘আমি চট্টগ্রামের উন্নয়নে দিনরাত কাজ করছি। বর্তমানে নগরবাসী দৃশ্যমান কাজ দেখছেন। এটি সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারণে। প্রধানমন্ত্রী আমাকে সুযোগ দিয়েছেন আর আমি সততার সাথে সেই দায়িত্ব পালন করছি। আমি গরীব ঘর থেকে উঠে এসেছি। আমার মা বাবা আমাদের লেখাপড়ার জন্য অনেক কষ্ট সহ্য করেছেন। কিন্তু তারা আমাদেরকে সততার দীক্ষা দিতেন। মা বাবার সেই শিক্ষা থেকে আজকে আমি সিডিএ চেয়ারম্যান হয়েছি। চট্টগ্রামবাসীর জন্য কাজ করতে পেরে আমি নিজেতে ধন্য মনে করছি। তাই অতীতকে ভুলা যাবে না। অতীতের শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে ভবিষ্যতে নিজ গন্তব্যে পৌঁছাতে হবে। শুধু শিক্ষিত হলে হবে না ভালো মনের মানুষ হতে হবে। এতে দেশ, সমাজ ও পরিবারের সম্পদ হিসেবে একজন শিক্ষার্থী পরিণত হতে পারবে। অনুষ্ঠানে জেএসসি ও এসএসসির ৫৪ জন ক্যাডেটকে বৃত্তি প্রদান করা হয়। বিজ্ঞপ্তি