মেক্সিকোয় সেতুতে ঝুলন্ত অবস্থায় ১৯ মরদেহ উদ্ধার

6

মেক্সিকোর পশ্চিমাঞ্চলে মিচোয়াকান প্রদেশে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে একাধিক মাদক কারবারি দলের মধ্যে সংঘর্ষে ১৯ জন নিহত হয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার প্রদেশের উরুয়াপান শহরের একটি সেতু থেকে অর্ধনগ্ন ও ঝুলন্ত অবস্থায় কয়েকজন এবং শরীরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ বিচ্ছিন্ন অবস্থায় বাকিদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মিচোয়াকানের প্রধান প্রসিকিউটর আদ্রিয়ান লোপেজের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম জানায়, মাদক উৎপাদন, বিপণন ও সেবন সংক্রান্ত আধিপত্য বিস্তার নিয়ে স্থানীয় দলগুলোর মধ্যে ওই সংঘর্ষ ঘটে। এসব নিয়ে এখানকার জনগণ সবসময়ই আতঙ্কিত। আদ্রিয়ান এ ঘটনায় বিশেষ কোনো দলের নাম উল্লেখ করেননি।
স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত এ ঘটনার ছবিতে দেখা যায়, একটি সেতুতে বেশ কিছু লাশ ঝুলে আছে। পাশে প্লাস্টিকের বড় একটি কাগজে হুমকি দিয়ে লেখা- ‘চমৎকার মানুষেরা, প্রাত্যহিক দিনযাপন চালিয়ে যাও’। এর নিচে লাল কালিতে সংক্ষেপে ‘সিজেএনজি’ বলে একটি অপরাধী চক্রের নাম লেখা। প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, কর্তৃপক্ষ তিনটি স্থান থেকে ওইসব মরদেহ উদ্ধার করে। সা¤প্রতিক বছরগুলোতে মিচোয়াকান সংগঠিত অপরাধীদের সংঘর্ষের অন্যতম প্রধান একটি জায়গা হয়ে উঠেছে। এ অঞ্চলের অপরাধীদের ঠেকাতে সরকার ২০০৬ সালে সেনাবাহিনী মোতায়েন করে। যদিও সমালোচকরা বলে, এতে করে সহিংসতা আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। ওই সময় থেকে এখন পর্যন্ত মেক্সিকোতে অন্তত আড়াই লাখ হত্যাকাÐের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে গত বছরই ৩৩ হাজার ৭৫৫টি হত্যাকাÐ সংঘটিত হয়। গত ডিসেম্বরে ক্ষমতায় আসা দেশটির বামপন্থী প্রেসিডেন্ট আন্দ্রে মানুয়েল লোপেজ এ ধরনের অপরাধ হ্রাস করতে নতুন বাহিনীও প্রতিষ্ঠা করেছেন। কিন্তু তিনি এখন পর্যন্ত সাফল্যের মুখ দেখতে পাননি।