‘মনে রেখ’র একযুগ পূর্তি

মাসব্যাপী ক্রেতাদের জন্য উপহারের ছড়াছড়ি

ফারুক আবদুল্লাহ

18

শাড়ি-থ্রি পিস ও লেহেঙ্গার জন্য চট্টগ্রামের সববৃহৎ প্রতিষ্ঠান ‘মনে রেখ’র একযুগ পূর্তি উপলক্ষ্যে মাসব্যাপী ক্রেতাদের জন্য উপহার উৎসব চলছে। এখান থেকে ক্রেতারা ৫ হাজার টাকার পণ্য ক্রয় করে প্রতিটি স্ক্র্যাচ কার্ড এ নিশ্চিত উপহার পাচ্ছেন। ইতোমধ্যে নির্ধারিত মূল্যের পণ্য কিনে বিপুল সংখ্যক ক্রেতা ফ্রিজ, ওভেন, টেবিল ফ্যান ও রাইচ কুকার পেয়েছেন। এছাড়া অসংখ্য ক্রেতা সান্ত¦না উপহার হিসেবে পাচ্ছেন মগ, জগ, টিফিন বক্স এবং চায়ের ফ্লাক্সসহ নানান উপহার। মাসব্যাপী এই উপহার উৎসব চলবে বলে জানায় কর্তৃপক্ষ।
গত ১২ মে নগরীর মেহেদীবাগ এলাকা থেকে ঈদ উপলক্ষ্যে কেনাকাটার জন্য ‘মনে রেখ’তে আসেন সুমাইয়া আলম। এখান থেকে তিনি নির্ধারিত টাকার পণ্য কিনে তাৎক্ষণিক স্ক্র্যাচ কার্ড ঘষে নিশ্চিত উপহার হিসেবে একটি ডিপ ফ্রিজ উপহার পেয়েছেন।
তিনি পূর্বদেশকে জানান, মনে রেখ’র এই ধরনের আয়োজনে আমি খুবই সন্তুষ্ট। ভবিষ্যতে কর্তৃপক্ষ ক্রেতাদের জন্য আরও ভিন্ন ভিন্ন উপহার প্রদান করেন এই প্রত্যাশা রাখছি।
একইভাবে গত ১৭ মে নগরীর সল্টগোলা ক্রসিং এলাকা থেকে ঈদের কেনাকাটার জন্য মনে রেখতে আসেন মোহাম্মদ হারুন। এখান থেকে তিনি নির্ধারিত টাকার পণ্য কিনে তাৎক্ষণিক স্ক্র্যাচ কার্ড ঘষে নিশ্চিত উপহার হিসেবে একটি ডিপ ফ্রিজ পেয়েছেন। তিনি উৎফুল্ল মনে পূর্বদেশকে জানান, আমি মনে রেখ থেকে নিয়মিত বাজার করি। এখান থেকে অনেক বিয়ের বাজারও করেছি। ফ্রিজটা পেয়ে আমার খুব আনন্দ লাগছে। এখানে মনের মতন জিনিস কিনতে পাওয়া যায়।
হারুন জানান, ‘মনে রেখ’তে ন্যায্যমূল্যে সব ধরনের পণ্যের দাম রাখা হয়। এছাড়া কাপড়ের নির্ধারিত দামের পরও বিশেষ ছাড় দেওয়া হয় বলে জানান তিনি।
চট্টগ্রামের সর্ববৃহৎ শো-রুম মনে রেখ’তে ঈদের কেনাকাটা করতে এসে শুধুমাত্র সুমাইয়া আলম ও মোহাম্মদ হারুনই উপহার পেয়েছেন তা কিন্তু না! মাহে রমজানের প্রথম দিন থেকে গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত প্রায় ২০০ জন ক্রেতা নির্ধারিত টাকার পণ্য ক্রয় করে উপহার হিসেবে ফ্রিজ, ওভেন, টেবিল ফ্যান এবং রাইচ কুকার পেয়েছেন। এছাড়া অসংখ্য ক্রেতা সান্ত¡না পুরস্কার হিসেবে প্রতিদিন মগ, জগ, টিফিন বক্স ও চায়ের ফ্লাক্স পেয়েছেন।
মনে রেখ’র স্বত্তাধিকার ওসমান গণি বলেন, আমার মূল লক্ষ্য হলো শুরু থেকে প্রতিটি ক্রেতাদের মূল্যায়ন, ক্রেতাদের সন্তুষ্টি এবং সেবা প্রদান করা। টেরিবাজারে আমার প্রতিষ্ঠানটি প্রথম। দীর্ঘ ১২ বছর ধরে ক্রোতারা আমার প্রতিষ্ঠান মনে রেখকে প্রথম হিসেবে মনে রেখেছে। আর চট্টগ্রামের ক্রেতাগণ মনে রেখ’র উপর আস্থা ও বিশ্বাস রেখেছে বলে আমি ক্রেতাদের ভালোবাসা স্বরূপ প্রতিদিন বিভিন্ন ধরনের নামিদামি উপহার সামগ্রী প্রদান করছি।
তিনি বলেন, ম্যাসব্যাপী উপহার সামগ্রী দেওয়া হচ্ছে আমার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে। ক্রেতাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত দাম নিয়ে উপহার দেওয়া হচ্ছে না। এই উপহার কেবলমাত্র ক্রেতাদের প্রতি আমার ভালোবাসা ছাড়া আর কিছুই নয়। ১ যুগপূর্তি উপলক্ষ্যে মাসব্যাপী ক্রেতাদের জন্য প্রতিদিন যে সমস্ত উপহারের আয়োজন করা হয়েছে এতে তারা উপহার পেয়ে খুবই সন্তুষ্ট। সেই সাথে ক্রেতাগণ প্রতিটি স্ক্র্যাচ কার্ড এ নিশ্চিত উপহার পাচ্ছেন।
দমফাটানো বিক্রয় উৎসব-২০১৯ উপলক্ষ্যে ক্রেতাদের জন্য কি পরিমাণ উপহারের ব্যবস্থা করা হয়েছে জানতে চাইলে ওসমান গণি বলেন, মাহে রমজানের প্রথম দিন থেকে ১৪ রমজান পর্যন্ত ক্রেতারা মনে রেখ থেকে পণ্য কিনে ৪টি ফ্রিজ, ১২টি ওভেন, ৫০টি টেবিল ফ্যান, ১০০টির বেশি রাইচ কুকার উপহার পেয়েছেন। এছাড়া প্রতিদিন সান্ত¡না উপহার হিসেবে অসংখ্য মগ, জগ, টিফিন বক্স, চায়ের ফ্লাক্স প্রদান করা হচ্ছে। আর আমরা যে পরিমাণ উপহার সামগ্রী দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলাম, ক্রেতাদের চাহিদার প্রেক্ষিতে ঘোষণার চেয়ে অধিক সংখ্যক উপহার প্রদান করছি।
এদিকে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ২টা পর্যন্ত ক্রেতাদের জন্য মনে রেখ খোলা থাকবে। মনে রেখ’তে এবারের ঈদে বিভিন্ন ডিজাইনের শাড়ি পাওয়া যাচ্ছে। ক্রেতাদের মনের মত চাহিদা পূরণ করতে প্রতিবারের মত এবারও মনে রেখ বাজারে এনেছে দেশীয় জামদানি, কাঞ্চিবরণ ও টাঙ্গাইলের তাঁতের ক্যাটলগ শাড়ি। এ বছর উল্লেখযোগ্য শাড়ির তালিকায় রয়েছে হান্ডি কাতান, গাদোয়ান, ইন্ডিয়ান অপেরা, ব্যাঙ্গালোর সিল্ক, বেলগাঁও কাতান, জারদৌসি, নেট বুটিকস, চেন্নাই কাতান সিল্ক, বেনারসি, জামদানি, বালুচরি, জুট পার্টি শাড়ি, ফ্যান্সি শাড়ি, অ্যাপল, বাসু ও নটরাজসহ বিভিন্ন ডিজাইনের নামিদামি সুতি শাড়ি। এসব শাড়ির দাম ৫ হাজার থেকে শুরু করে ৭০ থেকে ৮০ হাজার টাকা পর্যন্ত রয়েছে। আর নরমাল শাড়ির দাম ৩০০ টাকা থেকে শুরু করে ২ হাজার টাকা এবং পার্টি শাড়ির দাম ২ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ২০ হাজার টাকার মধ্যে রয়েছে। এখানে রয়েছে মেয়েদের জন্য বিভিন্ন ডিজাইনের ফ্রি পিস, যার মধ্যে ইন্ডিয়ান দিল্লি বুটিকস, পাকিস্তানি ফ্রি পিস এবং দেশিয় বিভিন্ন ধরনের কালেকশন রয়েছে। পার্টি কিংবা যে কোনোধরনের অনুষ্ঠানে যাওয়ার জন্য থ্রি পিস এর দাম ২ হাজার থেকে শুরু করে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত রয়েছে। আর নরমাল থ্রি পিস এর দাম ৪০০ টাকা থেকে শুরু করে ২ হাজার টাকা পর্যন্ত রয়েছে। এছাড়া রয়েছে দিল্লি ও মুম্বাইয়ের বিখ্যাত লেহেঙ্গার নান্দনিক কালেকশন। আরো রয়েছে মুম্বাই ও দুবাইয়ের কসমেটিকস ও জুয়েলারি সামগ্রী।