মহাকালের মহাপুরুষের স্বীকৃতি মুজিবের

31

সমগ্র জাতি ও বিশ্ব বাঙালি সম্প্রদায় মহাকালের মহাপুরুষের অকৃত্রিম স্বীকৃতি দিল জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু। প্রকারান্তরে এ স্বীকৃতি মিললো বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকীর প্রথম দিনে গতকাল ১৭ মার্চ। মহামারি করোনাকে উপেক্ষা করে বিশ্বব্যাপি বাঙালির টুঙ্গিপাড়ার খোকাকে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি বাংলাদেশের জাতিরজনক বঙ্গবন্ধুকে হৃদয় নিংড়ে এ মহামূল্যের হিরন্ময় স্বীকৃতি দিল। যে মহাপ্রাণকে হত্যা করে তার বিচার বন্ধের জন্য সে সময়কার স্বৈরসরকার ইনডিমনিটি আইন পাস করেছিল, তাকে আড়াল করার জন্য। সে মুজিবের জন্মশতবর্ষ পালন করলো সারা বিশ্বের বাঙালিরা। ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদি তাঁকে স্বীকার করলো, আরেক বাঙালির মহানেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় বঙ্গবন্ধুকে শির অবনত করে শ্রদ্ধা জানালেন। সারাবিশ্বের বাংলা পত্রিকাগুলো বঙ্গবন্ধুর কালপঞ্জি নিয়ে ক্রোড়পত্র ছাপালো। ওয়াশিংটন ডিসি স্মরণ করলো বাংলার রাখাল রাজা মুজিবরকে। প্রবাসে বাঙালিরা সারাদিনের অনুষ্ঠানমালা তার স্মৃতির উদ্দেশে নিবেদন করলো। প্রাবন্ধিক, কলামিস্ট, আলোচক-গবেষকরা সর্বোচ্চ আসনে আসিন করলো কালজয়ী মহাপ্রাণের কীর্তি গেয়ে। বঙ্গবন্ধুর মাজারে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও বিভিন্নস্তরের মানুষ তাদের শ্রদ্ধা ও মহার্ঘ্য ঢেলে দিল। যে মুজিব ৬৯ সালেই স্বাধীনতার স্বপ্ন দেখেছিলেন। যিনি ২৬ মার্চের আগে মূলত স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন। যার যা কিছু আছে তাই নিয়ে শত্রæর মোকাবেলা, ঘরে ঘরে দুর্গ গড়া, রাস্তা-ঘাট অচল করা এবং খাজনা ট্যাক্সবন্ধসহ পশ্চিম পাকিস্তান থেকে পৃথক হয়ে যাবার মন্ত্র দিয়েছিলেন স্বাধীনতা উন্মুখ বাঙালিকে। এরপর আর স্বাধীনতার ঘোষণা দেবারও প্রয়োজন ছিল না। যার প্রজ্ঞাময় দীর্ঘ সংগ্রাম ও ত্যাগের ফসল স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ। তাঁর জন্মশতবর্ষে বাংলাদেশ আনন্দে উদ্বেলিত হবে, এতো স্বাভাবিক ও অতিবাস্তব। যৌক্তিক কারণে গতকাল রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান থেকে বন্দর নগরী চট্টগ্রামসহ সারাদেশ রাত ৮ টায় আতশবাজি, আলোচনা, সেমিনার, ধর্মীয় স্থাপনায় প্রার্থনা, বিশেষ খাবার-দাবারের আয়োজন হলো সীমিত পরিসরে।
আগামী ২০২১ সালের ১৭ মার্চ শেষ হবে মুজিববর্ষ। এ বর্ষে সরকারের সকল প্রতিশ্রæতি বাস্তব রূপ লাভ করুক এ প্রত্যাশা মুজিবপ্রেমি তথা সমগ্র দেশবাসির। যে নেতাই উচ্চারণ করেছিল সমগ্র পৃথিবীর মানুষ দুই ভাগে বিভক্ত। একদল শোষক, আরেক দল শোষিত। আমি পৃথিবীর শোষিত মানুষের নেতা। তাই মুজিবর্ষে আমাদের প্রতিশ্রুতি থাক দুনিয়াজোড়া শোষিত মানুষ মুক্তি পাক। ফিরে আসুক স্বাধীনতা, অর্থনৈতিক মুক্তি। দূর হোক বৈষম্য, ঘৃণা ও জিঘাংসা।