ভারতের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ২০২১ সালের শুরুতে মিলবে দেশে তৈরি ভ্যাকসিন

18

২০২১ সালের মার্চের ভেতরেই ভারতের তৈরি প্রথম কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন হাতে পাওয়া যাবে বলে আবারও আশা প্রকাশ করেছেন সেদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন। সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি। এর আগে রাজ্যসভায় বাদল অধিবেশনেও একই আশা প্রকাশ করেছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস-এর প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে। ভারতে আপাতত করোনার তিনটি সম্ভাব্য টিকার ক্নিনিকাল ট্রায়াল চলছে। সোমবারই পুণের স্যাসন জেনারেল হাসপাতালে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার ‘ভ্যাকসিন ক্যান্ডিডেট’-এর তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল শুরু হয়েছে। পাশাপাশি বায়োটেকের সম্ভাব্য টিকা কোভ্যাক্সিনের দ্বিতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল চলছে।
উত্তরপ্রদেশ সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, অক্টোবর থেকে গোরখপুর ও ল²ৌতে কোভ্যাক্সিনের তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল শুরু হবে। অন্যদিকে, তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের জন্য অনুমোদন জোগাড় করছে জাইডাস ক্যাডিলা। সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন বলেন, ‘ভ্যাকসিন তৈরির জন্য বর্তমানে গবেষণা চলছে। এ মুহূর্তে বিভিন্ন ধাপের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে থাকা ভ্যাকসিনগুলোর মধ্যে অন্তত তিনটি সম্ভাবনাময়। আমরা আশাবাদী যে ২০২১ সালের প্রথম ত্রৈমাসে ভ্যাকসিন হাতে পাওয়া যাবে।’ এদিন ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চের (আইসিএমআর) ১০০ বছর ইতিহাসের ইতিবৃত্ত প্রকাশ করেন হর্ষবর্ধন।
সেই অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘কোভিড ১৯-এর টিকা সংক্রান্ত একটি অনলাইন পোর্টাল খোলা হয়েছে। সবাই সেই পোর্টালে যেতে পারবেন। টিকার গবেষণা ও তৈরি এবং ক্লিনিকাল ট্রায়াল সংক্রান্ত তথ্য জানতে পারবেন। দেশে অন্যান্য টিকার বিষয়েও সেই পোর্টালে তথ্য মিলবে।’