চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন

বৃষ্টিতে সড়ক মেরামতে দশগুণ বেশি দামের ‘কোল্ড রেডিমিক্স’

ওয়াসিম আহমেদ

13

বৃষ্টিতে সড়কের খানাখন্দ মেরামত করতে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ব্যবহার করছে চায়না থেকে আমদানিকৃত ‘কোল্ড রেড়িমিক্স’। যেটি সাধারণ তাপমাত্রায় সড়ক মেরামতে কার্যকরী ভূমিকা রাখতে পারে। তবে সাধারণ বিটুমিন দিয়ে মিক্সার তৈরিতে স্বাভাবিকের চেয়ে দশগুণ বেশি খরচ হয় এই মিক্সারে। আপাতত খরচ বেশি পড়লেও নিট হিসেবে লাভজনক ও দীর্ঘমেয়াদি দুর্ভোগ লাঘবে সহায়ক বলে দাবি করছে সিটি কর্পোরেশন। গতকাল নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়কে পরীক্ষামূলকভাবে এই মিক্সার ব্যবহার করে সংস্থাটি।
জানা গেছে, এক কেজি ‘কোল্ড রেডিমিক্সে’র দাম ১১৯ টাকা। বিপরীতে সিটি কর্পোরেশনে নিজস্ব অ্যাসফল্ট প্ল্যান্টে সাধারণ বিটুমিন দিয়ে ১ কেজি মিক্সার উৎপাদন করতে খরচ হয় ১১ টাকা। প্রায় দশগুণ বেশি খরচ হয় এই মিক্সার ব্যবহারে।
এ বিষয়ে সিটি কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিন আহমদ পূর্বদেশকে বলেন, বর্ষায় ছোট ছোট গর্তগুলোতেই কোল্ড রেডিমিক্স ব্যবহার করা হচ্ছে। এগুলো এখন সংস্কার করা না হলে, বর্ষা শেষে মেরামত করতে যা খরচ হবে তা বর্তমানের তুলনায় দশগুণ বেশি হবে। আপাতত সাধারণ বিটুমিন দিয়ে তৈরি মিক্সারের তুলনায় খরচ বেশি পড়লেও মোট হিসেবে এই ‘কোল্ডমিক্স’ ব্যবহার লাভজনক। কেননা খরচ যেমন কমছে, তেমনি দীর্ঘ সময় ধরে সড়কের গর্তের কারণে সৃষ্ট দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।
তিনি আরও বরেলন, সাধারণ বিটুমিনের মিক্সার কাজ করে উচ্চ তাপমাত্রায়। এমনকি তা ১২০ সেন্টিগ্রেড থেকে ১৮০ সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রায় রাখতে হয়। ব্যবহারের সময় বৃষ্টি পড়লে বা কম তাপমাত্রা থাকলে এই মিক্সার কার্যকারিতা হারায়। অন্যদিকে ওই মিক্সার কোল্ড বিটুমিন দিয়ে তৈরি। ফলে সাধারণ তাপমাত্রায় কাজ করা যায়। যা দীর্ঘমেয়াদি দুর্ভোগ ও খরচ বাঁচাতে সাহায্য করে।
সিটি কর্পোরেশনের তত্ত¡াবধায়ক প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) সুদীপ বসাক বলেন, বৃষ্টিতেও থেমে নেই আমাদের কাজ। কোল্ড রেডিমিক্স এমন এক ধরনের মিক্সার যা পানিতে ব্যবহার করা যায়। বিদেশ থেকে আমদানিকৃত এই মিক্সার গতকাল থেকে ব্যবহার শুরু করেছি। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন প্রথমবারের মতো এ রেডিমিক্স ব্যবহার করছে। চীন থেকে ফার্মারোড় নামের একটি প্রতিষ্ঠান এই রেড়িমিক্স আমদানি করে বলে জানান তিনি।
এমন প্রযুক্তি ব্যবহার নিয়ে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন পূর্বদেশকে বলেন, বৃষ্টির সময় সড়কের গর্ত মেরামত করা যায় না। তাছাড়া বর্ষা শেষ হতে হতে গর্তগুলো বড় হয়ে দুর্ভোগের সাথে সাথে খরচও বাড়িয়ে দেয়। ফলে মেরামতের খরচ ও দুর্ভোগ কমাতে চায়না প্রযুক্তিতে তৈরি এই রেডিমিক্স ব্যবহার করছে সিটি কর্পোরেশন। যদি ফলাফল ভালো হয়, তাহলে এই প্রক্রিয়া আরও ব্যবহার করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। মেয়র আরও জানান, এখন বর্ষার সময়। ফলে সড়কে পানি উঠলেই গর্ত তৈরি হচ্ছে। যে কারণে নগরবাসীকে অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এ থেকে বাঁচতে এমন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে।
উল্লেখ্য, গতকাল সকাল থেকেই নগরীর বিভিন্ন সড়কে এই ‘কোল্ড রেডিমিক্স’ ব্যবহার করে সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে জাকির হোসেন রোড, টাইগারপাস মোড়, লালখান বাজার, দেওয়ানহাট ব্রিজ, বিমানবন্দর সড়কসহ গুরুত্বপ‚র্ণ সড়কগুলোতে ‘কোল্ড রেডিমিক্স’ ব্যবহার করা হয়েছে। অন্যান্য সড়কগুলোতেও একইভাবে সংস্কার কাজ হবে বলে জানিয়েছেন চসিকের প্রকৌশলীরা। উন্নত বিশ্বে বৃষ্টির মধ্যে সড়ক সংস্কারে এ ধরনের রেডিমিক্স ব্যবহার হয়ে থাকে। সাধারণ বিটুমিন বৃষ্টির পানিতে কার্যক্ষমতা হারায়। তাই চলতি বর্ষায় নগরীর সড়ক সংস্কারে চীন থেকে এ ‘কোল্ড রেডিমিক্স’ আমদানি করে ফার্মা রোড় নামের এক প্রতিষ্ঠান।