বিশ্বের সেরা ধনী নারী কারা ?

28

বিশ্বের শীর্ষ ধনীদের নামের তালিকার দিকে তাকালে পুরুষদের নামই আসে
সবার আগে। তবে পুরুষদের পাশাপাশি সেই তালিকায় নাম রয়েছে বেশ কয়েকজন নারীর। তারা কেউ নিজের যোগ্যতায় এই অর্থ উপার্জন করেছেন, আবার কেউ পেয়েছেন উত্তরাধিকারসূত্রে। যারা ঘর সংসারের পাশাপাশি নিজেদের পেশাদার জীবনেও সাফল্যের চূড়ায় পৌঁছাতে পেরেছেন এমন কয়েকজনের পরিচয় থাকছে এখানে-
ফ্রাঁসোয়াস বেটাকোর মেয়ার
তার মোট সম্পদের পরিমাণ প্রায় পাঁচ হাজার কোটি ডলার। ফোর্বস ম্যাগাজিনের হিসেব অনুসারে তিনি বিশ্বের ধনী ব্যক্তিদের তালিকার ১৫ নম্বরে।
ফরাসী কসমেটিক কোম্পানি ল’রিয়েলের উত্তরাধিকারী তিনি। তিনি এবং তার পরিবার এই কোম্পানির ৩৩ শতাংশের মালিক।
তার বয়স এখন ৬৫। সব সম্পদ তিনি পেয়েছেন তার মায়ের কাছ থেকে। তার মা ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ৯৪ বছর বয়সে মারা গেছেন। এনিয়ে তারা দীর্ঘ বিরোধেও জড়িয়েছিলেন।
মিজ বেটাকোর-মেয়ার একটি আইনি মামলা করেছিলেন যেখানে তিনি অভিযোগ করেছিলেন তার মাকে আশেপাশের কিছু ব্যক্তি ব্যবহার করছে। কিন্তু মায়ের মৃত্যুর আগে তাদের মধ্যে সম্পর্ক আবার স্বাভাবিক হয়ে গিয়েছিল।
ম্যাকেঞ্জি বোজেস
তার সম্পদের পরিমাণ প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি ডলার। এটা শুধু আমাজনের যতটুকু মালিকানা তিনি পাবেন তার আর্থিক মূল্য। মোট সম্পদের পরিমাণ এর চেয়েও আরো বেশি হবে।
তার বয়স ৪৮। আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোসকে তিনি বিয়ে করেন ১৯৯৩ সালে। একটি হেজ ফান্ড কোম্পানিতে কাজ করার সময় তাদের পরিচয় হয়েছিল। তাদের চারটি সন্তান রয়েছে।
আমাজনে যারা প্রথম চাকরি শুরু করেন তাদের একজন ছিলেন ম্যাকেঞ্জি। তিনি যোগ দিয়েছিলেন একজন অ্যাকাউন্ট্যান্ট হিসেবে।
তিনি দুটো বহুল আলোচিত ফিকশন বই লিখেছেন। লেখক টনি মরিসনের কাছে লেখালেখির বিষয়ে প্রশিক্ষণও নিয়েছেন তিনি। ম্যাকেঞ্জি বেজোস পাবেন আমাজনের ৪% সম্পদ। ফলে তার অর্থ সম্পদের পরিমাণ দাঁড়াবে সাড়ে তিন হাজার কোটি ডলারেরও বেশি।
ক্রিস্টি ওয়ালটন কোটিপতিদের তালিকায় এর নাম রয়েছে ৬ নম্বরে। সম্পত্তির বেশিরভাগটাই ইনি পেয়েছেন প্রয়াত স্বামী জন ওয়ালটনের থেকে। ওয়াল মার্টের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন জন। ক্রিস্টির সম্পত্তির পরিমাণ ৪২.১ কোটি মার্কিন ডলার। ওয়াল মার্ট ছাড়া আরও একটি সংস্থায় ২৭ শতাংশ শেয়ারের মালিক ক্রিস্টি। ৬০ বছর বয়সি ক্রিস্টি ব্যক্তিগত জীবনকে লাইমলাইটের থেকে দূরে রাখতেই পছন্দ করেন। ভিওমিং-এর জ্যাকসনে বাস ক্রিস্টির।
অ্যালিস ওয়ালটন ক্রিস্টি
ছাড়াও ওয়ালটন পরিবারের আরও দুই নারী নাম রয়েছে এই তালিকায়। তার মধ্যে অন্যতম হলেন অ্যালিস। ওয়াল মার্টের আরও এক অংশীদার অ্যালিস। তার সম্পত্তির পরিমাণ ৩৯.৭ কোটি মার্কিন ডলার। পৃথিবীর ধনী ব্যক্তিদের মধ্যে এর নাম আসে ১০ নম্বরে। আর্ট কিউরেটর হিসেবে ইনি বিখ্যাত। ২০১১ সালে আরকানসাসের বেন্টোভিল-এ তিনি প্রতিষ্ঠা করেন ক্রিস্টাল ব্রিজেস মিউজিয়াম অফ আমেরিকান আর্ট।
জাকলিন মারস
এর পদবি দেখেই নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন ইনি কোন বংশের! পৃথিবীর সর্ববৃহৎ ক্যান্ডি প্রস্তুতকারক সংস্থা মারস-এর অন্যতম মালিক জাকলিন। এর সম্পত্তির মোট অঙ্ক ২৪ কোটি মার্কিন ডলার।
সুজান ক্ল্যাটেন
জার্মানির সব থেকে ধনী মহিলা সুজান। ইগড-র গ্রষ্টা অটোমেকার হারবার্ট কোঁয়ান্দ-এর মেয়ে সুজান। তার মোট সম্পত্তির পরিমাণ ১৭.৫ কোটি মার্কিন ডলার।
লরিন পাওয়েল জোবস
স্টিভ জোবস-এর স্ত্রী ৫১ বছর বয়সি লরিন পাওয়েল জোবস-এর সম্পত্তির মোট পরিমাণ ১৭.৪ কোটি মার্কিন ডলার। স্বামীর সঙ্গে মিলে অ্যাপেল সংস্থা শুরু করেছিলেন লরিন। দীর্ঘ সময় তিনি এই সংস্থার সিইও ছিলেন। এছাড়াও দ্য ওয়াল্ট ডিজনি-র সব থেকে বেশি পরিমাণ শেয়ার আছে তার কাছে। যার পরিমাণ প্রায় ১৩ কোটি। সূত্র: বিবিস